আইনস্টাইনের চেয়েও বেশি বুদ্ধিদীপ্ত যারা!

ঢাকা, শুক্রবার   ০৫ জুন ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ২৩ ১৪২৭,   ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

আইনস্টাইনের চেয়েও বেশি বুদ্ধিদীপ্ত যারা!

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:৫৭ ২৯ মার্চ ২০২০   আপডেট: ১৭:১৯ ২৯ মার্চ ২০২০

বিখ্যাত বিজ্ঞানী অ্যালবার্ট আইনস্টাইন

বিখ্যাত বিজ্ঞানী অ্যালবার্ট আইনস্টাইন

অ্যালবার্ট আইনস্টাইন এমন একটি নাম যা সবার মনেই গেঁথে আছে। যার বিশেষ কারণ হচ্ছে তার প্রতিভা বা বুদ্ধিমত্তা। সাধারণ মানুষের তুলনায় তিনি ছিলেন অনেক বেশি বুদ্ধিমান। তিনি ছিলেন এমন একজন বিজ্ঞানী যার আইকিউ ছিল বেশ প্রখর।

বুদ্ধিমত্তার বিচারে একজন সাধারণ মানুষের আইকিউ বা বুদ্ধিদীপ্ততার পয়েন্ট ১০০। যাদের আইকিউ পয়েন্ট ১৪০ তারা এক কথায় প্রতিভাবান। বিখ্যাত বিজ্ঞানী অ্যালবার্ট আইনস্টাইন কখনো কোনো বুদ্ধিমত্তার পরীক্ষায় অংশ নেননি। তবুও ধারণা করা হয় তার আইকিউ পয়েন্ট ১৬০।

তবে আজ আপনাদের জানাবো এমন কিছু ব্যক্তিদের কথা যাদের কাছে এই ১৬০ পয়েন্ট কিছুই না। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক অধিক আইকিউ পয়েন্ট সম্পন্ন সেসব ব্যক্তিদের পরিচিত।

জ্যাকব বার্নেট

বুদ্ধিবৃত্তিক বিকাশের সমস্যা নিয়ে মাত্র দুই বছর বয়সেই জ্যাকবকে ডাক্তারের ছুরির নিচে যেতে হয়েছিল। অপারেশন এর পর ডাক্তার বলেও দিয়েছিলেন, জ্যাকব হয়তো কখনো নিজের জুতার ফিতাটাও বাঁধতে পারবেনা! কিন্তু সেটা যে ভুল মতামত ছিল তার প্রমাণ জ্যাকব নিজেই। ১৭০ আইকিউ পয়েন্টের অধিকারী জ্যাকব নিজের পোশাক আষাক পরিধান ও সাজসজ্জার বিষয়টিকে আয়ত্তে নিয়ে এসেছে।

নিজের বুদ্ধিমত্তার জোরে জ্যাকব এক বছরের ব্যবধানে ক্লাস সিক্স থেকে কলেজ পর্যায়ে চলে যায়। মাত্র ১০ বছর বয়সে সে কলেজে ভর্তি হয়। ১৩ বছর বয়সের মধ্যেই সে একজন প্রতিষ্ঠিত ফিজিশিয়ানে পরিণত হন। আর এখন ১৯ বছর বয়সে জ্যাকব তার পিএইচডি ডিগ্রী নিয়ে কাজ করছেন! 

জুডিট পলগার

১৭০ আইকিউ পয়েন্টের অধিকারী এই হাঙ্গেরিয়ান দাবার মাস্টারকে দাবা খেলার ইতিহাসে শ্রেষ্ঠ মহিলা দাবাড়ু হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ১৯৯১ সালে মাত্র ১৫ বছর ৪ মাসের মাথায় দাবা খেলার ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে গ্র্যান্ড মাস্টার খেতাব অর্জন করেন।

রিক রজনার

নিজের বুদ্ধিমত্তার মাত্রা নির্ধারণে রিক রজনার ৩০টির মত পরীক্ষার সম্মুখীন হয়েছেন। পরীক্ষাগুলোর ফলাফল নির্ধারণের ধরণের ভিত্তিতে তার আইকিউ পয়েন্ট ১৯২ থেকে ১৯৮ এর মধ্যে। বিশ্বের দ্বিতীয় বুদ্ধিমান ব্যক্তি এই ব্যক্তি টিভির লেখক হওয়ার আগে একজন বাউন্সার, স্ট্রিপার ও নগ্ন মডেল হিসেবে কাজ করেছেন। ‘হু ওয়ান্টস টু বি এ মিলিয়োনিয়ার’ প্রোগ্রামে ১৬০০০ (ষোলো হাজার) মার্কিন ডলারের একটি প্রশ্ন না পাড়ায় তিনি এবিসি নেটওয়ার্ক এর নামে মামলা দায়ের করেছিলেন। কিন্তু সেই মামলায় তিনি হেরে যান।

মেরলিন ভস সাভান্ট

মেরলিন ভস সাভান্ট এর বয়স যখন ১০ তখন একটি এডাল্ট লেভেল স্ট্যানফোর্ড বাইনেট প্রতিষ্ঠান প্রকাশ করে যে মেরলিন ভস সাভান্ট এর আইকিউ পয়েন্ট ২২৮। যা পরবর্তীতে তাকে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে জায়গা করে দেয়। মেধা বিচারের পয়েন্টকে অশুদ্ধ মনে হওয়ায় ১৯৯০ সালে এই ক্যাটাগরী বাদ দিয়ে দেয়া হয়। ১৯৮৬ সাল থেকে মেরলিন ভস তার ‘আস্ক মেরিলিন’ ম্যাগাজিনের জন্য দার্শনিক ও গাণিতিক উত্তর দিয়ে আসছেন।

আইনান চাওলে

এই আইরিশ শিশুটির আইকিউ পয়েন্ট ২৬৩ বলে ধারণা করা হয়। ৮ বছর বয়সের মধ্যেই সে সিঙ্গাপুরের পলিটেকনিক থেকে তৃতীয় বর্ষের রসায়ণের উপর ডিগ্রী গ্রহণ করে। ৯ বছর বয়সের মাথায় আইনান পিআই এর ৫১৮ টি স্থানের কথা নিজের আয়ত্তে নিয়ে এসেছে। ১২ বছর বয়সে আইনান একটি শর্ট ফিল্মের জন্য সঙ্গীত রচনা করেছিল। ১৮ বছর বয়সে এখন বিনোদনের প্রতি আইনান এর আলাদা আকর্ষণ কাজ করা শুরু করে। আর সে স্ক্রিপ্ট লেখার কাজও করে।

ইভানগেলস কাটসিয়াওলিস

ওয়ার্ল্ড জিনিয়াস ডিরেক্টরি এর মতে ইভানগেলস কাটসিয়াওলিস (এমডি, এমএসসি, এমএ, পিএইচডি) এর আইকিউ পয়েন্ট ১৯৮ এবং সব থেকে বেশি পরীক্ষিত। দর্শনশাস্ত্র এবং ওষুধ গবেষণা প্রযুক্তির উপর এই গ্রীক সাইকিয়াট্রিস্ট এর ডিগ্রীও আছে।

শো ইয়ানো

২০০ আইকিউ পয়েন্ট এর অধিকারী আমেরিকান শল্য চিকিৎসক শো ইয়ানো নয় বছর বয়সেই কলেজে যাওয়া শুরু করেন এবং ২১ বছরের মাথায় এমডি ও পিএইচডি অর্জন করে।
 
তায়কোয়ান্দোতে শো ইয়ানোর ব্ল্যাক বেল্ট রয়েছে। চার বছর বয়স থেকেই শো ইয়ানো গান রচনা করতে শুরু করেন। তবে শেষ পর্যন্ত তিনি শিশুদের স্নায়ুবিদ্যার উপর গবেষণা শুরু করেন।  

নাথান লিওপল্ড

নাথান লিওপল্ডের আইকিউ পয়েন্ট ২০০। ১৮ বছর বয়সেই নাথান ৯টি ভিন্ন ভাষায় কথা বলার সামর্থ্য অর্জন করেছিলেন। কিন্তু তিনি তার বুদ্ধিমত্তাকে ভালো কাজে ব্যবহার করেননি। ১৯২৪ সালে ৯ বছর বয়সে খুনের দায়ে নাথান লিওপল্ড ও তার এক সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্যারোলে মুক্তি পাওয়ার আগে লিওপল্ড জেলে ৩৩ বছর কাটিয়েছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এএ