Alexa আপনি কবে মারা যাবেন, ব্লাড টেস্টেই জেনে নিন!

ঢাকা, রোববার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৭ ১৪২৬,   ২২ মুহররম ১৪৪১

Akash

আপনি কবে মারা যাবেন, ব্লাড টেস্টেই জেনে নিন!

স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:২৫ ২১ আগস্ট ২০১৯   আপডেট: ১৩:৩৪ ২১ আগস্ট ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

এবার স্বাস্থ্য পরীক্ষার মাধ্যমে মৃত্যুর সময়ও জানা যাবে! বিষয়টি অবাক হওয়ার মতই। তবে সম্প্রতি গবেষকরা এক ধরনের ব্লাড টেস্ট তৈরি করেছেন। এর মাধ্যমে আগামী ১০ বছরে আপনার মারা যাওয়ার সম্ভাবনা অনুমান করা যাবে।

জার্মানির ম্যাক্স প্ল্যাঙ্ক ইনস্টিটিউটের একদল গবেষক ৪৪ হাজার লোকের ওপর এক পরীক্ষা চালান। এর মাধ্যমে তারা নিশ্চিত হয়েছেন, রক্তে ১৪টি বায়োমার্কার বা জৈবসূচক মৃত্যুর ঝুঁকিকে প্রভাবিত করে। এগুলো অনাক্রম্যতা, গ্লুকোজ নিয়ন্ত্রণ থেকে শুরু করে চর্বি এবং প্রদাহ সম্পর্কিত সমস্ত কিছুর সঙ্গে জড়িত।

গবেষণায় বায়োমার্করের একটি পরীক্ষায় আগামী দুই থেকে ১৬ বছরের মধ্যে কেউ মারা যাবেন কিনা, এই বিষয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়। পরে এর ৮৩ শতাংশই সঠিক প্রমাণিত হয়।

এতে চিকিৎসকরা সাধারণত রক্তচাপ এবং কোলেস্টেরলের মাত্রার মতো কারণের ভিত্তিতে কোনো ব্যক্তি আগামী বছরের মধ্যে মারা যাবেন কিনা, তা নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করেন। তবে পদ্ধতিটি এখনো প্রচলিত রক্ত ​​পরীক্ষায় প্রয়োগ করা হয়নি।

এদিকে বিজ্ঞানীরা আশা করছেন, ওই পরীক্ষার ফলাফলগুলো আগামীতে রোগীর চিকিৎসা সংক্রান্ত ব্লাড টেস্টে ব্যবহার করা যেতে পারে। 

গবেষকদের ওই দলটি নেচার কমিউনিকেশনস জার্নালে লিখেছেন, পরবর্তী পাঁচ থেকে দশ বছরের মধ্যে একজনের মৃত্যুর ঝুঁকির পরিমাণ নির্ধারণ করা আরো জটিল হবে।

ওই গবেষকরা কয়েক হাজার প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির রক্ত ​​বিশ্লেষণ করেছেন। ওই পরীক্ষায় অংশ নেয়া ব্যক্তিদের বয়স ১৮ থেকে ১০৯ বছরের মধ্যে ছিল। গবেষকরা ১৪টি বায়োমার্কার শনাক্ত করেছিলেন, যা সব বয়সী পুরুষ এবং নারীর মধ্যে পাওয়া গেছে। এই বায়োমার্কারগুলিকে একটি পরীক্ষায় একত্রিত করা হয়েছিল।

গবেষকরা এর কার্যকারিতা মূল্যায়ন করতে প্রথমে অংশগ্রহণকারীদের ‘প্রচলিত কারণসমূহের’ ভিত্তিতে মৃত্যুর ঝুঁকি নিরূপণ করেছিলেন। এর মধ্যে বিএমআই, রক্তচাপ, কোলেস্টেরল, অ্যালকোহলগ্রহণ এবং ধূমপানের পাশাপাশি ক্যান্সার বা হৃদরোগ নিরূপণের বিষয়গুলোও ছিল।

এরপর গবেষক দলটি নতুন রক্ত ​​পরীক্ষায় বায়োমার্কারগুলো অনুসারে অংশগ্রহনকারীদের মৃত্যুর ঝুঁকি নিরূপণ করেন। স্কোরগুলি ছিল মাইনাস টু  থেকে থ্রি পর্যন্ত। প্রতি এক পয়েন্ট বৃদ্ধিতে দ্রুত মৃত্যুর ঝুঁকির সঙ্গে প্রায় তিনগুণ বেশি সংশ্লিষ্ট ছিল। 

ওপেন ইউনিভার্সিটির ফলিত পরিসংখ্যানের ইমেরিটাস অধ্যাপক কেভিন ম্যাককনওয়ের মতে, মৃত্যুর ঝুঁকি পূর্বাভাস দেয়ার জন্য বিদ্যমান পদ্ধতির বাইরে এটা যায় না। 

তিনি বলেন, এই ফলাফলগুলি ক্লিনিক্যাল কাজের ক্ষেত্রে সরাসরি ব্যবহার করা যাবে না। কারণ একই স্কেলে সংশ্লিষ্ট ‘বায়ো ইন্ডিকেটর’গুলো মাপা হয়নি। সূত্র- ডেইলি মেইল।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর