রমজানের প্রস্তুতি নিচ্ছে টিসিবি

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৯ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ২৬ ১৪২৬,   ১৫ শা'বান ১৪৪১

Akash

রমজানের প্রস্তুতি নিচ্ছে টিসিবি

মীর সাখাওয়াত হোসেন ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:২৪ ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ২০:৫৫ ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

পবিত্র রমজান মাস আসলেই এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ীরা দ্রব্যমূল্য বাড়ানোর পাঁয়তারা করে। তাদের কারণে বিপাকে পড়ে সাধারণ মানুষ।

বাজারের স্থিতিশীলতার জন্য প্রতি বছরের মতো এবারো নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রি করবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণাধীন প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। এরইমধ্যে পণ্য কেনার প্রক্রিয়াও শেষের পথে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

আসন্ন রমজান মাসে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে এক হাজার কোটি টাকার বেশি মূল্যের ছয়টি পণ্য বিক্রি করবে টিসিবি। প্রতি বছর রমজানে সয়াবিন তেল, চিনি, মসুর, ছোলা এবং খেজুর বিক্রি করে সংস্থাটি। তবে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির কারণে এ বছরে এটিকে তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বিগত কয়েকদিনে সয়াবিন তেলের দাম প্রতি লিটারে আট টাকা বেড়েছে। যা বর্তমানে প্রতি লিটার বিক্রি হচ্ছে ১১০-১১৫ টাকায়। বিষয়টিকে মাথায় রেখে আগের বছরের তুলনায় এবার বেশি পরিমাণ সয়াবিন বিক্রি করবে সরকারি সংস্থাটি।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূ্ত্রে আরো জানা গেছে, দেশে বার্ষিক ২০ লাখ টন সয়াবিন তেলের চাহিদা রয়েছে। শুধু  রমজান মাসেই এর চাহিদা প্রায় সাড়ে তিন লাখ টন। টিসিবি এ মাসে তেলের মোট চাহিদার ১৫ শতাংশ সরবরাহ করবে।

এবার টিসিবি নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য চিনি বিক্রি করবে ৩৫ হাজার টন। গত বছর মাত্র দুই হাজার টন চিনি বিক্রি করেছিল টিসিবি।

এবার ৩০ হাজার টন পেঁয়াজ বিক্রি করবে টিসিবি। পাশাপাশি আট হাজার টন ছোলা বিক্রির পরিকল্পনা রয়েছে। গত বছর ১ হাজার ৫০০ টন ছোলা বিক্রি করেছিল সরকারি সংস্থাটি।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, টিসিবি এ বছর রমজানে তিন হাজার টন মসুর ডাল এবং ৫০০ টন খেজুরও বিক্রি করবে।

অন্যদিকে রমজানে বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকার কঠোরভাবে পর্যবেক্ষণ করবে বলে জানা গেছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কয়েকজন কর্মকর্তা বলেন, চলতি মাস থেকেই বাজার নজরদারি বাড়ানো হবে, যাতে কেউ দ্রব্যমূল্য অস্থিতিশীল করতে না পারে।

রমজানের বাজার স্থিতিশীল করার জন্য ট্যারিফ কমিশন, জাতীয় গ্রাহক অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর এবং বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনসহ বিভিন্ন সরকারি বিভাগগুলোতে মন্ত্রণালয় এরইমধ্যে একটি কর্মপরিকল্পনা পাঠিয়েছে।

টিসিবির প্রধান তথ্য কর্মকর্তা মো. হুমায়ুন কবির জানান, রমজানে পণ্য বিক্রির প্রস্তুতি প্রায় শেষ। আমরা গত বছরের তুলনায় এ বছর বেশি পণ্য বিক্রির প্রস্তুতি নিচ্ছি। ছয়টি নিত্য পণ্য বিক্রি করা হবে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মো. জাফর উদ্দিন বলেন, রমজানের জন্য সরকারের পুরোপুরি প্রস্তুতি রয়েছে।  সংশ্লিষ্ট প্রতিটি বিভাগ এ বিষয়ে সতর্ক রয়েছে বলে জানান তিনি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএস/এস/এসআই