কোভিড-১৯: ইতালিতে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ৭৯

ঢাকা, রোববার   ২৯ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১৬ ১৪২৭,   ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

কোভিড-১৯: ইতালিতে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ৭৯

ইসমাইল হোসেন স্বপন, ইতালি প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:১৫ ৪ মার্চ ২০২০   আপডেট: ১৯:৫৩ ৪ এপ্রিল ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ইতালিতে ভয়াবহ হারে বাড়ছে কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৯ জনে। এছাড়া দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন দুই হাজার ৫০২ জন।

মঙ্গলবার দেশটির নাগরিক সুরক্ষা সংস্থা এ খবর জানিয়েছে। ইতালিতে কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা আরো বাড়বে আশঙ্কা সংশ্লিষ্টদের।

এদিকে দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ১৬০ জন চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন বলেও জানিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ।

কোভিড-১৯ প্রতিরোধে ইতালি সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। সোমবার থেকে ইতালির লোম্বারদিয়া, ভেনেতো, পিওমন্তে ও ভেনেসিয়া অঞ্চলে স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করেছে দেশটির সরকার। বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে ইতালির ভেনিস উৎসব। এছাড়া ফুটবল লীগ, নাইট ক্লাব ও জাদুঘর বন্ধ রয়েছে।

ইতালির ভেনিস শহর জরুরি না হলে জনসমাগমস্থল পরিহার ও ভ্রমণ না করতে নির্দেশনা দিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। সমস্ত  জনসমাগম এলাকায় একে অপর থেকে এক মিটার দূরে দাঁড়িয়ে থাকতে নির্দেশও দেয়া হয়েছে।

ইতালির পরিস্থিতি দেখে প্রতিবেশী সব দেশ এরই মধ্যে সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে।

জানা গেছে, ইতালির শহরগুলোতেও করোনাভাইরাস আতঙ্কে আছেন প্রবাসী বাংলাদেশীসহ বিভিন্ন দেশের অভিবাসীরা। ইতালির বিভিন্ন শহরে প্রায় দুই লাখ বাংলাদেশি বসবাস করছে।

ইতালির মিলান শহরে দীর্ঘ সময় ধরে বসবাস করছেন মাদারীপুরের তুহিন মাহামুদ। তিনি জানান, ইতালিতে এখন পর্যন্ত  করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ৭৯ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১৬০ জন। আর যারা মারা গেছে তারা বেশিরভাগই বয়ষ্ক নানা জটিল রোগে আক্রান্ত ছিল। ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা আরো বাড়বে কিন্তু ভয়ের কোন কারণ নেই। অনেকেই স্বাভাবিক চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে উঠছে।

ইতালির বিশেজ্ঞ ডাক্তাররা জানিয়েছে, যাদের কাশি, সর্দি, এবং শ্বাসকষ্ট আছে, তাদের বেশি সাবধানে থাকতে হবে। এই উপসর্গ গুলো বয়ষ্কদের মাঝে বেশি বিদ্যমান এবং রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে এরা বেশি দুর্বল হয়। এ সময় ইতালিতে অসুস্থতার সংখ্যা বেশি থাকে। তাই ঘাবড়ানোর কোন কারণ নেই। সবাইকে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে।

এদিকে ইতালিতে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় প্রবাসী বাংলাদেশিদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ দূতাবাস।

ইতালিতে প্রবাসী বাংলাদেশি কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে কি না এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আব্দুস সোবহান সিকদার জানান, কোনো বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত হয়েছে এমন খবর পাওয়া যায়নি। ইতালির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে দূতাবাস সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রেখেছে।

ইতালির কাঁচাবাজারইতালির বাংলাদেশ রোম দূতাবাসে হেল্প ডেস্ক খোলা হয়েছে। যদি কোনো প্রবাসী বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত হয়ে থাকে তবে ১৫০০ এবং ১১২ নাম্বারে ফোন করে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

করোনাভাইরাসে আতঙ্কিত না হয়ে প্রবাসী বাংলাদেশিদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন ইতালির রাজনৈতিক ও কমিউনিটির নেতারা।

উলেখ্য, গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশে প্রথম করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়। এরপর থেকে বিশ্বের ৭৭টি দেশে এ করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। সেই সঙ্গে বাড়ছে এ ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী ও মৃত্যুর সংখ্যা।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে/