মানুষ হত্যার জন্য বোমা আছে কিন্তু বাঁচানোর জন্য মাস্ক নেই

ঢাকা, মঙ্গলবার   ০৭ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ২৪ ১৪২৬,   ১৩ শা'বান ১৪৪১

Akash

মানুষ হত্যার জন্য বোমা আছে কিন্তু বাঁচানোর জন্য মাস্ক নেই

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:২৮ ২৫ মার্চ ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

অন্য দেশে হামলা চালানোর জন্য আমাদের দেশের সরকারের কাছে নানা ধরনের বোমা আছে কিন্তু নিজের জনগণকে রক্ষা করার জন্য পর্যাপ্ত মাস্ক নেই। যুক্তরাষ্ট্রের এক নিউজ ওয়েব পোর্টালে এমন মন্তব্য করেছে।

কমন ড্রিমস নামের ওই ওয়েব পোর্টাল লিখেছে, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার লোকজন ইরানকে যুদ্ধে উস্কানি দেয়া এবং আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জনমত নিয়ে গবেষণা করতে এত বেশি ব্যস্ত ছিলেন যে, কখন যে যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে তারা তা টেরও পাননি। অথচ চীন থেকে বিভিন্ন দেশ হয়ে যুক্তরাষ্ট্র পর্যন্ত এ ভাইরাস আসার আগে তাদের হাতে যথেষ্ট সময় ছিল।

কমন ড্রিমস আরো লিখেছে, ট্রাম্প মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া এ ভাইরাসকেও রাজনৈতিক মাপকাঠি দিয়ে পরিমাপ করেছেন। প্রথমে তিনি করোনাভাইরাসকে গুরুত্ব না দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে এটির ছড়িয়ে পড়ার খবরকে ‘ডেমোক্র্যাটদের প্রতারণা’ বলে উল্লেখ করেন। এরপর তিনি যখন পরিস্থিতির ভয়াবহতা উপলব্ধি করেন তখন অনেক দেরি হয়ে গেছে।

মার্কিন ওয়েব পোর্টালটির বিশ্লেষণে আরো বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থা এখন এতটা নাজুক হয়ে গেছে যে, করোনাভাইরাস বিরোধী লড়াইয়ের সামনের সারির যোদ্ধা- নার্সরা মাস্কের পরিবর্তে ওড়না দিয়ে নাক-মুখ বেধে রোগীর সেবায় নিয়োজ হয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে যখন সামান্য মাস্কের এত অভাব তখন আফগানিস্তান, পাকিস্তান, ইরাক, ইয়েমেন, সোমালিয়া ও পশ্চিম আফ্রিকাসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানুষ হত্যার জন্য তাদের অস্ত্রাগারের রয়েছে ৫০০ পাউন্ড ও এক হাজার পাউন্ডের অসংখ্য বোমা।

কমন ড্রিমস আরো লিখেছে, করোনা মোকাবিলায় যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থা এখন এতটাই শোচনীয় যে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প একবার ব্যবহারের জন্য তৈরি করা মাস্ক বারবার ব্যবহার করার জন্য হাসপাতালগুলোকে নির্দেশ দিয়েছেন।

এরইমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিটি রাজ্যে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় মারা গেছে ৭৮৪ জন। আক্রান্ত ৫৪ হাজার ৯৯৫। প্রতিনিয়ত দেশটিতে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ছে।

সূত্র: পার্সটুডে

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএএইচ