Alexa র‍্যাগ ডে ঘিরে নোবিপ্রবি ১১ ব্যাচের বিদায়ী সুর 

ঢাকা, বুধবার   ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ১৩ ১৪২৬,   ০২ রজব ১৪৪১

Akash

র‍্যাগ ডে ঘিরে নোবিপ্রবি ১১ ব্যাচের বিদায়ী সুর 

নোবিপ্রবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:০১ ২৬ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১২:১০ ২৬ জানুয়ারি ২০২০

ছবিঃ ডেইলি বাংলাদেশ

ছবিঃ ডেইলি বাংলাদেশ

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১১তম ব্যাচের তিন দিনব্যাপী র‍্যাগ ডে ‘অ্যাকুরিয়াস’ ঘিরে পুরো ক্যাম্পাস মেতে উঠেছে ভিন্নরূপে। বিশ্ববিদ্যালয়ের গোল চত্বর, শহীদ মিনার, হল সংলগ্ন দেয়ালসহ বিভিন্ন স্থানে রঙ দিয়ে সাজিয়ে রঙিন কলমে লিখে স্মৃতির রঙকে আরো গাঢ় করেছে ১১তম ব্যাচের বিদায়ী শিক্ষার্থীরা। 

একুরিয়াস প্রোগ্রাম হচ্ছে ২৬, ২৭, ২৮ জানুয়ারি। ক্যাম্পাসে বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা, ঘোরাঘুরি, ক্লাস অ্যাসাইনমেন্ট, প্রেজেন্টেশন নিয়ে দৌড়াদৌড়ি এভাবেই পার হয় জীবনের সব থেকে সেরা দিনগুলো। কখন যে সময় চলে যায় কেউ টেরই পায় না। চার বছর পার হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বেজে উঠে বিদায়ের ঘণ্টা।

তিনদিনের এই র‍্যাগ অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা হাতে নিয়েছে নানা আয়োজন। স্মারকগ্রন্থ বিতরণ, উদ্ধোধন ও র‍্যাগ র‍্যালি, বৃক্ষরোপণ, ক্যাম্পাস পরিষ্কার কার্যক্রম, র‍্যাগ স্পোর্টস প্রতিযোগিতার শেষ পর্ব ও মাল্টিমিডিয়া উপস্থাপনার মধ্য দিয়ে র‍্যাগ অনুষ্ঠানের প্রথম দিনের কার্যক্রম সম্পন্ন হবে।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় দিনে থাকবে রঙ উৎসব, ট্রাকর‍্যালি, গ্র্যান্ড লাঞ্চ, সাংস্কৃতিক ও বিদায় অনুষ্ঠান। তৃতীয় ও শেষদিন ওয়ারফেজ, আর্ক, দাগ, বাঙাল, দ্যা ইন্সপায়ার, সলিটিউড, উত্তরাধিকার ও সাইলেন্ট স্ট্রমের অংশগ্রহণে মুখরিত হবে নোবিপ্রবি কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ।

নোবিপ্রবির এই উৎসব মুখর পরিবেশে বিভিন্ন আয়োজনের সঙ্গে নিজেও জড়িত আছি। ভালো লাগছে খুব আল্পনা, গ্রাফিতিসহ বিভিন্ন কাজে ১১ ব্যাচসহ জুনিয়র শিক্ষার্থীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ দেখে। অনেক দিন পর সুন্দর ইতিহাস রচনা করতে যাচ্ছে অ্যাকুরিয়াস র‍্যাগ। এমন অনুভূতি প্রকাশ করছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের দিলরুবা জাহান রুমি। 

বিদায়ী শিক্ষার্থী জাহিদ হাসান শুভ বলেন, নোবিপ্রবিতে আসার পর আমি নিজে ৭,৮,৯ ও ১০ ব্যাচের শিক্ষা সমাপনী অনুষ্ঠান দেখেছি। আমার ইচ্ছে ছিলো ১১তম ব্যাচের এই শিক্ষা সমাপনী অনুষ্ঠান যেন সবগুলোর চেয়েও সুন্দর ও সুশৃঙ্খল হয়। আর আমার ১১তম ব্যাচের সহপাঠীরা আমাকে এই অনুষ্ঠানের আহবায়ক করে। আমার জায়গা থেকে সর্বোচ্চ চেষ্টা দিয়েই কাজ করে যাচ্ছি। এরইমধ্যে পুরো ক্যাম্পাসের সবাই আমাদের এই অনুষ্ঠানের আয়োজনে সন্তুষ্ট। 

বিদায়ী শিক্ষার্থী পূজা রয় বলেন, ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে ক্যাম্পাসে আমাদের ১১ ব্যাচের যাত্রা শুরু। সেই থেকে এখন পর্যন্ত ১১ ব্যাচ সবসময়ই ছিল সব দিক থেকে সবার চেয়ে ভিন্ন। ব্যাচের সবার মধ্যে প্রথম থেকেই একতা অনেক বেশি যেটা আমরা এখন পর্যন্ত ধরে রাখার চেষ্টা করেছি এবং চেষ্টা করবো সামনের দিনগুলোতে যেখানেই থাকি আমাদের এই সুসম্পর্ক টিকে থাকবে। 

পুরনো স্মৃতির কথা স্মরণ করে নাহিদ হাসান বলেন, একুরিয়াস প্রোগ্রাম হচ্ছে ২৬, ২৭, ২৮ জানুয়ারি। পুরো ক্যাম্পাস প্রতিটা শিক্ষার্থী মনে আনন্দের সমাহারে মুখরিত। যা আমাদের চার বছরে কাটানো প্রতিটা স্মৃতি, আড্ডা ও প্রতিটা মুহূর্ত চোখে ভেসে উঠছে। 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম