নিশীথ সূর্য দেখা যাবে যে ৬ দেশে

ঢাকা, মঙ্গলবার   ০৫ জুলাই ২০২২,   ২১ আষাঢ় ১৪২৯,   ০৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

নিশীথ সূর্য দেখা যাবে যে ৬ দেশে

ভ্রমণ প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:১৯ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২২  

নিশীত সূর্যের দেশ নরওয়ে। ছবি : সংগৃহীত

নিশীত সূর্যের দেশ নরওয়ে। ছবি : সংগৃহীত

শুনতে অবাক লাগলেও, পৃথিবী সৃষ্টির প্রথম দিন থেকেই রাতে সূর্য ওঠার লীলাখেলা চলছে। বিশ্বের মাত্র ছয়টি দেশে রাতে সূর্য দেখা দেয়।

যে দেশগুলোতে রাতেও সূর্য ওঠে-

নরওয়ে
উত্তর মেরুর বরফে ঢাকা দেশ নরওয়ে। সারা বছরই এখানে কনকনে ঠান্ডা। কিন্তু নরওয়েতে একবার গেলে প্রকৃতির অসাধারণ রূপের সাক্ষী হওয়া যায়। উত্তর মেরুর অরোরার খেলা নাকি পর্যটকদের বাকরুদ্ধ করে দেয়। গ্রীষ্মকালে এদেশে সূর্যাস্ত হয় না, তাই এখানে সব সময় গোধূলি। তবে শীতের চিত্র ঠিক উল্টো। মে থেকে জুলাই পর্যন্ত রাতেও সূর্য দেখা যায়। তবে ঝলমলে সূর্য নয়, এর চেহারা অনেকটা গোধূলি বেলার মতো। প্রায় ৭৬ দিন পর্যন্ত সেই সূর্য নরওয়ের আকাশে থাকে।

আইসল্যান্ড

ইউরোপের দ্বিতীয় বৃহত্তম দ্বীপ রাষ্ট্র আইসল্যান্ড। দেশটির প্রায় ১০ শতাংশ দখল করে রেখেছে হিমবাহ। প্রচণ্ড ঠান্ডা কারণে লোকজনের সংখ্যা বেশ কম। পর্যটকরাও এসব দেশে বেশি বেড়াতে যান না। আইসল্যান্ডেও কিন্তু রাতের সূর্য দেখা দেয়। জুন মাসে এই নিশীথ সূর্যের সবচেয়ে ভালো দর্শন মেলে। মার্চ এবং সেপ্টেম্বর মাসে এখানে দিন এবং রাতের পুরোপুরি অর্ধেক অবস্থান। আর ডিসেম্বরে দিনের মধ্যে ২০ ঘণ্টাই রাত।

নুনাভুট, কানাডা

কানাডার সবচেয়ে নতুন, বৃহত্তর এবং একেবারে উত্তর অবস্থিত অঞ্চল নুনাভুট। এখানে তিন হাজারেরও বেশি মানুষ বসবাস করেন। এটিও আর্কটিক অঞ্চলে অবস্থিত। এখানেও রাতে দেখা যায় সুয্যি মামাকে। শীতকালে আবার গোটা একটা মাস বিরাজ করে অন্ধকার।

আইসল্যান্ডের রাতের সূর্য। ছবি : সংগৃহীত

ব্যারো, আলাস্কা

আর্কটিক সার্কেলের আরেকটি স্থান আলাস্কা। দেশটির উত্তর অংশের সবচেয়ে বড় শহর ব্যারো। এই শহরের আসল নাম উটকিয়াগভিক। এই ব্যারো শহরের আকাশেও মে মাস থেকে জুলাই মাস পর্যন্ত সূর্য দেখা যায়। আবার গোটা নভেম্বরে এখানে সূর্যোদয় হয় না। সারা শহর থাকে অন্ধকারাচ্ছন্ন। বাকি শীতকালটিও এখানে থাকে মোটামুটি গাঢ় অন্ধকার।

ফিনল্যান্ড

প্রায় ৭৩ দিন ধরে রাতের বেলা সূর্য দেখা যায় ফিনল্যান্ডেও। সহস্র হ্রদের দেশ ফিনল্যান্ডের আকাশে সূর্য থাকে গ্রীষ্মকালে। আবার অন্যান্য দেশগুলোর মতো শীতকাল জুড়ে থাকে গাঢ় অন্ধকার। এখানকার বাসিন্দারা গ্রীষ্মকালে কম ঘুমান। বছরের বেশিরভাগ কাজই সেরে রাখেন সেই সময়। বহু মানুষ বসবাস করেন বরফের তৈরি বাড়ি ইগলুতে।

সুইডেন

মে মাস থেকে আগস্ট পর্যন্ত সুইডেনের আকাশেও রাতের সূর্যের দেখা মেলে। মধ্যরাতে অস্ত গিয়ে ফের ভোর ৪টায় সে উদয় হয়। প্রায় ছয় মাস থেকে এক বছর পর্যন্ত সারাদিন আকাশে সূর্যকে দেখা যায়। তাই এখানকার মানুষজনও দিনের আলোকে দারুণ উপভোগ করেন। উপভোগ করেন পর্যটকরাও। সারাদিন গলফ খেলে, মাছ ধরে, নানা জায়গা ঘুরে আনন্দে দিন কাটান তারা।

ডেইলি বাংলাদেশ/কেবি

English HighlightsREAD MORE »