মুরালিধরনের সুরে কথা বললেন রশিদ

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রহায়ণ ১৮ ১৪২৮,   ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

মুরালিধরনের সুরে কথা বললেন রশিদ

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:০৮ ১৯ অক্টোবর ২০২১  

রশিদ খান     -ফাইল ফটো

রশিদ খান -ফাইল ফটো

চলমান টি-২০ বিশ্বকাপে স্পিনাররা মূখ্য ভূমিকা পালন করবে বলে মনে করেন আফগানিস্তানের রশিদ খান।

তিনি জানান, আরব আমিরাতের কন্ডিশন ও উইকেটের কারনে স্পিনাররা সব সময়ই সহায়তা পান। সম্প্রতি আইপিএলেও সেটি দেখা গেছে।
এর আগে স্পিন কিংবদন্তী শ্রীলংকার মুত্তিয়া মুরলিধরনও একই ধরনের মন্তব্য ‘এবারের টি-২০ বিশ্বকাপ হবে স্পিনারদের’ করেছিলেন। 

মুরলি বলেছিলেন, বিশ্বকাপের ম্যাচে জিততে হলে স্পিনাদের দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে। স্পিনাররাই জেতাবে দলকে’।

ক্রিকেট মান্থলিকে রশিদ বলেছেন, এখানকার উইকেট বরাবরই স্পিন সহায়ক এবং এটা স্পিনারদের বিশ্বকাপ হওয়া উচিত। উইকেট কিভাবে বানানো হয়েছে, তাতে কিছু যায় আসে না। এখানে স্পিনাররা সব সময় সাহায্য পান। এই বিশ্বকাপে স্পিনাররা খুবই বড় ভূমিকা পালন করবে। আইপিএলে যেমন দেখেছি, স্পিনাররা তাদের দলকে ম্যাচে ফিরিয়েছে। আমার মনে হচ্ছে বিশ্বকাপেও তাই হবে। সেরা স্পিনাররা তাদের দলকে ম্যাচে ফেরাবে এবং জয় এনে দেবে।

আইপিএলের চর্তুদশ আসরে সানরাইজার্স হায়দারাবাদের হয়ে ১৮ উইকেট নেন রশিদ। তার মত ১৮টি করে উইকেট পেয়েছেন রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর যুজবেন্দ্রা চাহাল ও কলকাতা নাইট রাইডার্সের বরুণ চক্রবর্তী। কিন্তু আইপিএলে সর্বোচ্চ তিন শিকারীই পেসার।

তারপরও শারজা, আবুধাবি ও দুবাইয়ে উইকেট স্পিনারদের পক্ষে কথা বলবে বলে মনে করেন রশিদ। মরুর দেশে আইপিএলের গত দুই আসরের পরিসংখ্যান বলছে, দুবাইয়ে ৩০ দশমিক ৮ শতাংশ, শারজায় ৩০ দশমিক ১ শতাংশ এবং আবুধাবিতে ৩২ দশমিক ১ শতাংশ উইকেট পেয়েছেন সেখানে স্পিনাররা।

এ বছর আরব আমিরাতে আইপিএলের অভিজ্ঞতা টেনে এনে রশিদ বলেন, ৩ অক্টোবর আমরা যখন কেকেআরের মুখোমুখি হয়েছিলাম, তাদের দলে চারজন স্পিনার ছিল। সবাই ওভার প্রতি ৪-৫ রান করে দিয়েছিলেন। উইকেট যেমনই হোক না কেন, সংযুক্ত আরব আমিরাতের কন্ডিশনে স্পিনাররা সব সময় কার্যকর। তবে আমাদেরও ভালো বল করতে হবে। এমন না যে সবকিছু উইকেটই করে দেবে। না, না, না।

রশিদ ছাড়া আফগানিস্তান দলে স্পিনার হিসেবে আছেন মোহাম্মদ নবি ও মুজিব-উর-রহমান। তিন স্পিনার আফগানদের কত দূর নিয়ে যায়- সেটি এখন দেখার বিষয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএস