আদালতের নিষেধাজ্ঞা না মেনে দীঘি থেকে সাবেক মেয়রের মাছ লুট

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ৮ ১৪২৮,   ১৪ সফর ১৪৪৩

আদালতের নিষেধাজ্ঞা না মেনে দীঘি থেকে সাবেক মেয়রের মাছ লুট

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৩৪ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১   আপডেট: ১৭:৩৭ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া

ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলায় এক সাবেক মেয়রের বিরুদ্ধে দীঘি থেকে মাছ লুটের অভিযোগ উঠেছে। গত রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) উপজেলার চন্ডিপুর ইউনিয়নের মাছিমপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। এ নিয়ে ক্ষুদ্ধ স্থানীয় লোকজন। 

জানা গেছে, মাছিমপুর গ্রামের হাজী বাড়ির দীঘি নিয়ে দীর্ঘদিন হাইকোর্টে মামলা চলছে। রায় না হওয়া পর্যন্ত দীঘিতে যেন কেউ মাছ ধরতে না পারে এজন্য নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। কিন্তু কয়েক মাস পরপর বহিরাগত রামগঞ্জ থেকে ১৫-২০ জন লোক এসে প্রভাব খাটিয়ে দীঘিতে বরশি দিয়ে মাছ ধরেন।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, রামগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র বেলাল আহমেদ গত রোববার দলবল নিয়ে দীঘিতে মাছ শিকারে আসেন। বড় সাইজের বিভিন্ন প্রজাতির বেশকিছু মাছ ধরা হয়। বেলাল আহমেদ ফেসবুক আইডিতে মাছ ধরার ছবি আপলোড করেন। পরে সমালোচনা শুরু হলে তা মুছে ফেলা হয়। 

স্থানীয়দের অভিযোগ, সুপ্রিম কোর্টে দুই পক্ষের মামলাকে ইস্যু করে লোকজন নিয়ে প্রভাব খাটিয়ে দীঘি থেকে মাছ শিকার করে লুটেপুটে খাচ্ছে।

অভিযুক্ত সাবেক মেয়র বেলাল আহমেদ দাবি করেন, তিনি কোনো মাছ ধরেননি। কিছু লোক অপপ্রচার করছে। 

জানতে চাইলে চন্ডিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, দীঘি থেকে বরশি দিয়ে মাছ ধরার কথা শুনেছি। কিছু সময় পরে দীঘিপাড়ে খবর নিয়ে জানলাম, তারা চলে গেছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম