নাগরিক সেবায় ভোগান্তি কমাবে মসিকের নতুন দুই আঞ্চলিক কার্যালয়

ঢাকা, শনিবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ৪ ১৪২৮,   ০৯ সফর ১৪৪৩

নাগরিক সেবায় ভোগান্তি কমাবে মসিকের নতুন দুই আঞ্চলিক কার্যালয়

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:০৯ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১   আপডেট: ১৮:৩২ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের ২ ও ৩ নম্বর আঞ্চলিক কার্যালয় উদ্বোধন করেন মেয়র ইকরামুল হক টিটু

ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের ২ ও ৩ নম্বর আঞ্চলিক কার্যালয় উদ্বোধন করেন মেয়র ইকরামুল হক টিটু

ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের (মসিক) ২ ও ৩ নম্বর আঞ্চলিক কার্যালয় যাত্রা শুরু করেছে। মঙ্গলবার দুপুরে নগরীর কালিবাড়িতে ৯ নম্বর ওয়ার্ড কার্যালয়ে অঞ্চল-২ এবং বয়ড়া এলাকায় ২৫ নম্বর ওয়ার্ড কার্যালয়ে অঞ্চল-৩ এর কার্যক্রম উদ্বোধন করেন মসিক মেয়র ইকরামুল হক টিটু।

মেয়র বলেন, ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন ঘোষণার পর নাগরিক সেবা সহজ করা এবং ভোগান্তি লাঘবে দ্রুত আঞ্চলিক কেন্দ্র চালুর চেষ্টা করেছি। সেবা পেতে যেন নাগরিকদের আর নগর ভবনে যেতে না হয় সে লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি। নাগরিক সেবা প্রদানে আমরা নিদর্শন সৃষ্টি করতে চাই।

মসিকের ৩ নম্বর আঞ্চলিক কার্যালয় প্রাঙ্গণে এক মতবিনিময়ে তিনি এ কথা বলেন।

সিটি কর্পোরেশনের বাসিন্দাদের উদ্দেশ্যে মেয়র টিটু বলেন, অঞ্চলের উন্নয়নের প্রাথমিক দায়িত্ব আঞ্চলিক কার্যালয়ের। আমরা সেবার কেন্দ্র আপনাদের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়ে যাচ্ছি। এটা রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব আপনাদের।

মসিকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা সঠিকভাবে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে নজির সৃষ্টি করুন। সব নাগরিক যেন দ্রুত ও সহজে সেবা পায় তা নিশ্চিত করুন।

মসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেনের পরিচালনায় মতবিনিময়ে মসিক সচিব রাজীব কুমার সরকার, সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন বিভাগ ও শাখার প্রধান, প্যানেল মেয়র, কাউন্সিলর ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

২০২০ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর গেজেট নোটিফিকেশনের মাধ্যমে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের ১, ২, ৪, ৬, ১১, ১২, ২৭, ২৮, ২৯ ও ৩০ নম্বর ওয়ার্ড নিয়ে অঞ্চল-১। ৩, ৫, ৭, ৮, ৯, ১০, ১৬, ১৭, ১৮, ৩১, ৩২ এবং ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড নিয়ে অঞ্চল-২। ১৩, ১৪, ১৫, ১৯, ২০, ২১, ২২, ২৩, ২৪, ২৫ এবং ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের সমন্বয়ে অঞ্চল-৩ গঠন করা হয়। গেজেট প্রকাশের এক বছর পূর্তির আগেই আঞ্চলিক কার্যালয় যাত্রা শুরু করল। লাইসেন্স, কর, জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন, স্যানিটেশন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, পানি সরবরাহ, বৈদ্যুতিক কাজ ও তার রক্ষণাবেক্ষণ, সমাজকল্যাণ, পূর্ত কাজ, পানি সরবরাহ ও অন্যান্য সেবা এখন থেকে আঞ্চলিক কার্যালয়গুলো থেকেই পাবেন নাগরিকরা।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর/এইচএন