মুখে কাপড় বেঁধে শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ করলো বোন-জামাই

ঢাকা, সোমবার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ৫ ১৪২৮,   ১১ সফর ১৪৪৩

মুখে কাপড় বেঁধে শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ করলো বোন-জামাই

নেত্রকোনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:০৫ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে ঘর থেকে তুলে নিয়ে অষ্টম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। রোববার উপজেলার সদর ইউনিয়নের কোনাফান্দা গ্রাম থেকে আহত অবস্থায় ওই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ। 

এ ঘটনায় ওই শিক্ষার্থী নিজেই বাদী হয়ে খালাতো বোন জামাই মুলকাস উদ্দিন নামে একজনকে আসামি করে দুর্গাপুর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চার বছর আগে মা ও গত ছয় মাস আগে বাবার মৃত্যুর পর একমাত্র ভাইয়ের সঙ্গেই উপজেলার সীমান্তবর্তী পাহাড়ি এলাকায় বসবাস করে আসছিলো ওই কিশোরী। ভাই পেশায় অটোচালক তাই বেশিরভাগ সময় থাকতে হয় বাড়ির বাইরে। 

এদিকে প্রায়ই এই বাড়িতে আসা যাওয়া করতেন পাশের গ্রামের খালাতো বোন-জামাই মূলহাস উদ্দিন। শনিবার দিবাগত রাতে‌ বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে ঘরের দরজায় কড়া নাড়েন তিনি। ভাই এসেছে ভেবে দরজা খুলতেই শিক্ষার্থীর মুখে কাপড় বেঁধে বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে নিয়ে বাঁশের ঝাড়ে কিশোরীকে ধর্ষণ করেন। এ সময় কিশোরীর চিৎকার শুনে রাতে কয়েকজন কৃষক ছুটে আসলে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান মুলকাস। পরে ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে আসেন কৃষকরা। 

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে দুর্গাপুর থানার ওসি শাহ আলম জানান, আমরা কিশোরীকে উদ্ধার করে চিকিৎসা ও মেডিকেল পরীক্ষার জন্য নেত্রকোনা প্রেরণ করেছি। একটি মামলা দায়ের হয়েছে। আসামিকে ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। 

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম