অথচ মুমিনুলের ব্যাটই পুড়িয়ে ফেলেছিলেন তার বাবা!

ঢাকা, রোববার   ১৬ মে ২০২১,   জ্যৈষ্ঠ ৩ ১৪২৮,   ০৩ শাওয়াল ১৪৪২

অথচ মুমিনুলের ব্যাটই পুড়িয়ে ফেলেছিলেন তার বাবা!

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:১৮ ২৩ এপ্রিল ২০২১   আপডেট: ১৪:১৮ ২৩ এপ্রিল ২০২১

মুমিনুল হক

মুমিনুল হক

বাংলাদেশ জাতীয় দলের টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক। দেশের টেস্ট ইতিহাসে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরি করা এই ব্যাটারকে একসময় বাংলাদেশের ‘ব্র্যাডম্যান’ হিসাবে আখ্যায়িত করা হতো। সম্প্রতি তার ব্যাপারে জানা গেছে নতুন এক তথ্য। ছোট থাকতে নাকি মুমিনুলের ব্যাট পুড়িয়ে ফেলেছিলেন তার বাবা!

সাদা জার্সির ক্রিকেটে ব্যাট হাতে দেশের অন্যতম সেরা মুমিনুল হক। ছোটবেলায় ক্রিকেট খেলার প্রতি তার আগ্রহটা মোটেই পছন্দ করতেন না বাবা। খেলায় বেশি সময় দিলে ছেলের পড়ালেখায় ভাটা পড়বে, এটাই ছিল তার ভয়।

অন্য বাবাদের মত মুমিনুলের বাবাও চাইতেন, ছেলে বড় হয়ে ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ার বা সরকারী চাকরিজীবী হোক। এ কারণে একদিন পড়ার টেবিল থেকে উঠে ব্যাট হাতে মাঠে যাওয়ায় বেশ রেগে গিয়েছিলেন মুমিনুলের বাবা। জেদের বশে পুড়িয়ে ফেলেন মুমিনুলের ব্যাট-ই। ভেবেছিলেন, ব্যাট শেষ তো খেলাও শেষ।

দেশের এক গণমাধ্যমকে এসব তথ্য দিয়েছেন মুমিনুলের ছোটবেলার কোচ মন্টু কুমার দত্ত। বিকেএসপির প্রখ্যাত এই কোচ বলেন, কক্সবাজারে অনুশীলনের পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধা ছিল না। ফলে সেখানে ক্রিকেটকে ক্যারিয়ার হিসেবে নেবে এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া মুশকিল ছিল। 

তিনি আরো বলেন, অন্য সব বাবার মতো মুমিনুলের বাবাও চাইতেন না তার ছেলে ক্রিকেটার হোক। এ কারণে বাবা ঘরে এলে মা ও ভাই মিলে তার ব্যাট লুকিয়ে রাখতেন। কিন্তু একবার ধরা পড়ে গেলে মুমিনুলের বাবা তার ব্যাট পুড়িয়ে ফেলেছিলেন। বলা যায় মুমিনুলের একাগ্রতাই তাকে পরিপূর্ণ ক্রিকেটারে পরিণত করেছে।’

মা ও বড়ভাইয়ের আগ্রহ ও সহযোগিতার ফলে ক্রিকেটার হিসেবে এতদূর এসেছেন মুমিনুল। বাবাকে কোনো মতে রাজি করিয়ে মা-ভাইয়ের সমর্থনে বিকেএসপিতে ভর্তি হন মুমিনুল। পরের গল্প তো সবারই জানা।

এ বিষয়ে মন্টু বলেন,‘মুমিনুল একটু খাটো বলে বিকেএসপিতে ভর্তির ক্ষেত্রে কিছুতা অসুবিধা ছিল। পরের বছর নিজেকে প্রস্তুত করে সে বিকেএসপিতে ভর্তি হয়। সেদিনের সেই কিশোর এখন বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক। দেশের হয়ে সর্বাধিক সেঞ্চুরির মালিক। সব ভাব্লেই ভাল লাগে।’

ডেইলি বাংলাদেশ/এএল