টোকিওতে ফিরেছে অলিম্পিক রিং

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ৭ ১৪২৭,   ০৬ জমাদিউস সানি ১৪৪২

টোকিওতে ফিরেছে অলিম্পিক রিং

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:২৯ ১ ডিসেম্বর ২০২০  

টোকিওতে ফিরেছে অলিম্পিক রিং

টোকিওতে ফিরেছে অলিম্পিক রিং

করোনাভাইরাসের কারণে স্থগিত হয়ে যাওয়া অলিম্পিক আয়োজনের তোরজোড় ফের শুরু হয়েছে জাপানের রাজধানী টোকিওতে। মঙ্গলবার সেখানকার জলস্রোতে ফের ফিরিয়ে আনা হয়েছে বিশালাকৃতির অলিম্পিক রিংয়ের সেট। যা গেমসের উৎসাহ বাড়াতে সহায়তা করবে।

ভ্যাকসিনের ট্রায়াল টোকিও গেমস আয়োজনের প্রত্যাশাকে আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। গেমস শুরুর নতুন তারিখ নির্ধারিত হয়েছে ২০২১ সালের ২৩ জুলাই। করোনার সংক্রমনের কারণে এই গেমস আয়োজন বিলিম্বিত হয়েছে।

৬৯ টন ওজনের এই রিং গুচ্ছ টোকিওর ওডাইবা উপসাগরীয় অঞ্চলে পুন:স্থাপন করা হয়েছে। গেমস স্থগিত হয়ে যাওয়ায় ক্ষন গননা শুরুর জন্য বসানো রিং গুচ্ছটি দেখভাল ও রক্ষনাবেক্ষনের জন্য গত আগস্টে সরিয়ে নেয়া হয়েছিল। নতুন বছরের শুরুতে এখান থেকেই ফের শুরু হবে ক্ষন গননা।

নতুন করে রংয়ের প্রলেপ দেয়া রিংগুলো ফিরিয়ে আনা হয়েছে এবং রাতে সেখানে আলোক সজ্জার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। টোকিও সিটির সরকারী কর্মকর্তা আতসুসি ইয়ানাসিমিজু সাংবাদিকদের বলেন,আসন্ন অলিম্পিক গেমসকে মানুষ যাতে নিরাপদ মনে করে সে দিক লক্ষ্য রেখে আমরা গেমসটি আয়োজনের জন্য কঠোর পরিশ্রম করছি। অলিম্পিকের এই প্রতীক পুন:স্থাপনের মাধ্যমে আমরা আশা করছি মানুষ এই ইভেন্টটি অনুভব করবে। তারা বুঝবে এই গেমসটি শিঘ্রই আসছে এবং তারা এটি নিয়ে রোমঞ্চিত হবে।

জুলাইয়ে চালানো এক জনমত জরিপে দেখা গেছে জাপানের প্রতি চারজনের একজন ২০২১ সালের এই গেমস উপভোগ করতে চায়। বেশীর ভাগেরই সমর্থন ছিল এটি বিলম্বিত বা বাতিলের পক্ষে। আবার পৃষ্ঠপোষকতার বিষয়টিও ছিল উদ্বেগের। পৃষ্ঠপোষকদের সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়ে উদ্বিগ্ন ছিলেন আয়োজকরা।  

অলিম্পিক ও জাপানী কর্মকর্তারা অবশ্য বলেছেন যে তারা আগামী বছর গেমসটির আয়োজন নিয়ে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির প্রধান থমাস বাখ গত মাসে টোকিওতে বলেছিলেন, দর্শকদের উপস্থতির সম্ভবনার বিষয়ে তিনি খুবই আত্মবিশ্বাসী।

অলিম্পিকের সমাপ্তি পর্যন্ত ওই রিংগুলো সেখানে স্থাপিত থাকবে। মধ্য আগস্টে সেগুলোকে সরিয়ে বসানো হবে প্যারালিম্পিক প্রতীক। ইয়ানাসিমিজু বলেন, আমরা দেখতে চাই বিপুল সংখ্যক মানুষ এখানে এসে অলিম্পিকের প্রেরণা অনুভব করছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএস