এটাই ম্যারাডোনার শেষ ছবি

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ৮ ১৪২৭,   ০৬ জমাদিউস সানি ১৪৪২

এটাই ম্যারাডোনার শেষ ছবি

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:১৪ ২৬ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৭:২৮ ২৬ নভেম্বর ২০২০

ম্যারাডোনার ওঠানো শেষ ছবি

ম্যারাডোনার ওঠানো শেষ ছবি

অসুস্থতাজনিত কারণে কিছুদিন আগে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি ফুটবলার দিয়েগো ম্যারাডোনা। সেখানেই নিজের শেষ ছবি তুলেছিলেন তিনি। বুধবার ম্যারাডোনা মারা যাওয়ার পর যা এখন সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে। 

ছবিটি ম্যারাডোনা তার চিকিৎসক লিওপোলদো লুকের সঙ্গে তুলেছিলেন। হাসপাতালে থাকা অবস্থায় মস্তিষ্কে সফল অস্ত্রোপচারের পরপরই নিজের মোবাইলে ছবিটি তুলেছেন লুকে। তবে এরই মাঝে ছবিটি নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক।

হাসপাতালে থাকা অবস্থায় ম্যারাডোনার সঙ্গে ছবি তোলা ঠিক হয়েছে কি না এ নিয়ে অনেকেই ছবিটির সমালোচনা করছেন। তবে লুকের দাবি, ছবি তোলার বিষয়ে ম্যারাডোনার সম্মতি নিয়েছেন তিনি। 

আরো পড়ুন: টানা দ্বিতীয় ম্যাচে ব্যাট হাতে ব্যর্থ সাকিব

এ ব্যাপারে লুকে বলেন, দিয়েগোর এতে সম্মতি ছিল। আমি পরিস্কার করে বলতে চাই, এটি আমার সিদ্ধান্ত ছিল না। এটা ঠিক যে আমি ছবিটির গুরুত্ব ও এর প্রভাব তখন বুঝতে পারিনি। যারা এতে আহত হয়েছেন তাদের কাছে আমি ক্ষমা চাই। আমি কোনো ধরনের বিতর্ক চাইনি। 

ম্যারাডোনার পরিবারও আর্জেন্টাইন কিংবদন্তির সবশেষ ছবি নিয়ে নাখোশ। দেশটির মিডিয়ার প্রতিবেদন অনুযায়ী তারা চাননি এমন একটি ছবি কিংবদন্তির সবশেষ প্রকাশিত স্মৃতি হয়ে থাকুক। লুকে অবশ্য জানিয়েছেন, যেদিন ছবিটি তোলা হয় সেদিন খেলার মাঠে অসুস্থ হয়ে পড়ার থেকে ভালো অবস্থায় ছিলেন ম্যারাডোনা।

এ ব্যাপারে লুকে বলেন, আমি ভেবেছিলাম এই ছবিটি আগের ছবিটির স্মৃতিকে মুছে দিবে। ম্যাচের দিনের চেয়ে তিনি ওইদিন অনেক ভাল অবস্থায় ছিলেন। 

আরো পড়ুন: আর্জেন্টিনার জার্সিতে সর্বোচ্চ ম্যাচ জয়ের রেকর্ড এখন মেসির

অস্ত্রোপচারের কয়েকদিন আগে আর্জেন্টাইন ফুটবল লিগে নিজের দল জিমনেসিয়া লা প্লাতার একটি ম্যাচে উপস্থিত ছিলেন ম্যারাডোনা। হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ায় স্বাস্থ্যকর্মীরা তাকে মাঠের বাইরে নিয়ে যান।

অস্ত্রোপচারের পর সুস্থ হয়েই হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছিলেন ম্যারাডোনা। এরপর এল তিগ্রেতে নিজের বাড়িতে ছিলেন ফুটবল ঈশ্বর। গতকাল সেখানেই হার্ট অ্যাটাকে মারা যান ৬০ বছর বয়সী এই কিংবদন্তি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এএল