মার্শেইকে উড়িয়ে দিলো ম্যানচেস্টার সিটি

ঢাকা, রোববার   ০৬ ডিসেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ২২ ১৪২৭,   ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২

মার্শেইকে উড়িয়ে দিলো ম্যানচেস্টার সিটি

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:২২ ২৮ অক্টোবর ২০২০  

মার্শেইকে উড়িয়ে দিলো ম্যানচেস্টার সিটি

মার্শেইকে উড়িয়ে দিলো ম্যানচেস্টার সিটি

মার্শেইকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি।

মার্শেইর অরেঞ্জ ভেলোড্রোম মাঠে পেপ গার্দিওলার দলের জন্য ম্যাচটি অনেকটাই নিজেদের প্রমানের ও ঝালিয়ে নেবার ম্যাচ ছিল। প্রিমিয়ার লিগে ৫ ম্যাচে মাত্র ৮ পয়েন্ট নিয়ে ১৩তম স্থানে থাকা সিটিজেনদের আত্মবিশ্বাসেও যেন এবারের মৌসুমে কিছুটা হলেও ভাটা পড়েছে।

ম্যাচের ১৮ মিনিটে ফেরান টরেসের গোলে এগিয়ে যায় সিটি। এ নিয়ে টানা দ্বিতীয় ম্যাচে গোল পেলেন টরেস। কেভিন ড্রি ব্রুইনার পাস থেকে স্প্যানিশ এই ফরোয়ার্ড দারুণ এক গোলে সিটিকে লিড এনে দেন। ম্যাচের শুরু থেকেই নিয়ন্ত্রন নিজেদের দখলে নেয়া সিটি এই গোলের পর আরো আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠে। 

৭৫ মিনিটে পোস্টের খুব কাছে থেকে ইকে গুনডোগান ব্যবধান দ্বিগুন করেন। ৮১ মিনিটে রাহিম স্টার্লিংয়ের হেডের গোলে সিটির দাপুটে জয় নিশ্চিত হয়। আবারো ডি ব্রুইনার নিখুঁত পাস থেকে ইংলিশ ফরোয়ার্ড স্টার্লিং হেডের সাহায্যে বল জালে জড়ান। 

প্রথমার্ধে মার্শেই সিটি গোলরক্ষক এডারসনকে কিছুটা চাপে ফেলতে চেষ্টা করেছিল। ৩০ গজ দুর থেকে নেমাঞ্জা রাডোনিচের জোড়ালে শটটি এডারসন সহজেই রুখে দেন। বিরতির পর ফ্লোরিয়ান থভিনের শট কোনমতে আটকে দেন ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক এডারসন।

দলের এই উজ্জীবিত পারফরমেন্সে দারুণ সন্তুষ্ট সিটি বস গার্দিওলা ম্যাচ শেষে বিটি স্পোর্টসকে বলেছেন, আমরা সত্যিই দারুণ খেলেছি। ম্যাচে একটি গোলও হজম করিনি এবং পুরো ম্যাচের নিয়ন্ত্রন ৯০ মিনিটই আমাদের দখলে ছিল। এই আগ্রাসী মনোভাবই আমি সব সময় ছেলেদের কাছ থেকে আশা করি। এই পারফরমেন্স ও ফলাফলে আমি দারুণ সন্তুষ্ট। এ্যাওয়ে ম্যাচে জয়ী হওয়াটা সব সময়ই কঠিন। আমরা উভয় দিক থেকেই আজ খেলার চেষ্টা করেছি। পুরো মাঠের সুবিধাটা কাজে লাগিয়ে গোলের সুযোগ সৃষ্টি করেছি। আজকের ম্যাচে রাহিম স্টার্লিংয়ের সঙ্গে ফিল ফোডেন অসাধারণ খেলেছে। 

মার্শেইর পাঁচজন খেলোয়াড়কে আমরা রক্ষনভাগে খেলতে বাধ্য করেছি যা মোটেই আশাতীত ছিল না। প্রথম ম্যাচে পোর্তোর বিপক্ষেও একই ঘটনা ঘটেছিল। আর এই ধরনের ম্যাচগুলোতে আমরা যতবার রক্ষনভাগকে বাধ্য করেছি ততবারই ম্যাচের নিয়ন্ত্রন ও ছন্দ আমাদের হাতেই ছিল। রক্ষনভাগেও আজ আমরা সংঘবদ্ধ ছিলাম। অমারিক লাপোর্তে দারুন খেলেছেন। কাইল ওয়াকার সম্ভবত আজ তার সেরা ফর্মে ছিল।

এই জয়ে সিটি দুই ম্যাচে শতভাগ জয় নিয়ে গ্রুপ-সি’র শীর্ষেই থাকলো। একইসঙ্গে বাছাইপর্ব থেকে নক আউট পর্বে যেতে নিজেদের ফেবারিট হিসেবই ধরে রাখলো। আগামী ৩ নভেম্বর ঘরের মাঠে সিটিজেনরা অলিম্পিয়াকোসকে আতিথ্য দেবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএস