যে তিন অভিযোগে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন সাকিব

ঢাকা, শনিবার   ২৮ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১৪ ১৪২৭,   ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

যে তিন অভিযোগে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন সাকিব

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:০৫ ২৮ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১৬:৪৮ ২৮ অক্টোবর ২০২০

সাকিব আল হাসান (ফাইল ছবি)

সাকিব আল হাসান (ফাইল ছবি)

গত বছরের ২৯ অক্টোবর সাকিব আল হাসানকে সবধরনের ক্রিকেট থেকে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছিল ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে এই ঘটনা অনেকটা বিনা মেঘে বজ্রপাতের মতো হয়ে আসে। তখন থেকেই সাকিবের ফেরার ক্ষণ গণনা করতে শুরু করে ভক্তরা। আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা পরই আসছে কাঙ্ক্ষিত সেই মাহেন্দ্রক্ষণ, শেষ হচ্ছে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ। 

বিশেষ এই মুহূর্ত উপলক্ষে সে সময়ের ঘটনাগুলো আরেকবার তুলে ধরছে ডেইলি বাংলাদেশ। এই পর্বে থাকছে সাকিবের নিষিদ্ধ হওয়ার কারণগুলো নিয়ে প্রতিবেদন। 

সাকিবকে মূলত দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছিল আইসিসি। তবে তদন্তে সহযোগিতা ও বিভিন্ন বিষয় বিচারে সাজার মেয়াদ এক বছর কমিয়ে আনা হয়। টাইগার অলরাউন্ডারের বিরুদ্ধে তিনটি অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় এই সাজা দেয়া হয়েছিল। তিনটি অপরাধেই আইসিসির ২.৪.৪ ধারা ভঙ্গ করেছেন সাকিব। 

সাকিবের বিরুদ্ধে প্রমাণিত অভিযোগগুলো হলো: 

১. ২০১৮ সালের আইপিএল কিংবা একই বছরের জানুয়ারিতে বাংলাদেশ, শ্রীলংকা ও জিম্বাবুয়ের মধ্যকার ত্রিদেশীয় সিরিজে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পাওয়ার পরও তা আইসিসিকে না জানানো।

২. একই ত্রিদেশীয় সিরিজে জুয়াড়ির কাছ থেকে দ্বিতীয় একটি অনৈতিক প্রস্তাব পাওয়ার পরও চুপ থাকা এবং সেটা আইসিসির সংশ্লিষ্ট দফতরকে না জানানো।

৩. ২০১৮ সালের আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের মধ্যকার ম্যাচে ফিক্সারদের কাছ থেকে প্রস্তাব পাওয়ার পরও চুপ থাকা।

এসব অভিযোগের ব্যাপারে আকসুর কাছে দোষ স্বীকার করে নেন সাকিব। তদন্ত শেষে তার বিরুদ্ধে শাস্তি ঘোষণা করা হয়। দীর্ঘ এক বছরের সেই নিশেধাজ্ঞা শেষ হচ্ছে আজ রাত ১২টার পরই। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এএল