মাহমুদউল্লাহদের জয়ে জমে উঠলো প্রেসিডেন্টস কাপ

ঢাকা, শনিবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ২১ ১৪২৭,   ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২

মাহমুদউল্লাহদের জয়ে জমে উঠলো প্রেসিডেন্টস কাপ

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০১:৪৫ ২০ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১৪:৩০ ২০ অক্টোবর ২০২০

ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

মাহমুদউল্লাহ একাদশ জেতায় বেশ জমে উঠেছে ত্রিদলীয় প্রেসিডেন্টস কাপ। তামিম একাদশকে ৪ উইকেটে হারিয়ে ফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখলো তারা।

আগে ব্যাট করে ৮ উইকেটে ২২১ রান করে তামিম একাদশ। জবাবে ৬ উইকেটের বিনিময়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় মাহমুদউল্লাহ একাদশ। দুর্দান্ত বোলিং করে ম্যাচসেরা হয়েছেন অভিজ্ঞ পেসার রুবেল হোসেন।

রিয়াদের দল এই ম্যাচে হারলেই, তিনদলীয় এই আসরের ফাইনাল নিশ্চিত হয়ে যায় নাজমুল শান্ত একাদশ ও তামিম ইকবাল একাদশের। কারণ আগের তিন ম্যাচের মাত্র ১টিতে জিততে পেরেছিলো মাহমুদউল্লাহ একাদশ। তবে হাল ছাড়েনি অভিজ্ঞদের সমন্বয়ে গড়া এই দলটি। লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে জিতে, ফাইনালের আশা বাচিঁয়ে রাখলো তারা।
 
সোমবার মিরপুরের শের-ই বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা বাজে হয় তামিমের দলের। দলীয় ১১ রানে দুই ওপেনার তানজিদ ও তামিম ইকবালকে হারানোর পর দ্রুতই হারাতে হয় এনামুল বিজয় ও মোহাম্মদ মিথুনকে। 

বিপদের হাত থেকে দলকে উদ্ধারে এগিয়ে আসেন তরুণ মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন ও ইয়াসির রাব্বি। ৫ম উইকেটে এই দু'জনের জুটিতে ১১১ রান পায় তামিম একাদশ। ইয়াসির রাব্বি ৬২ রান করে আউট হন। 

ফিফটি তুলে নেন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান অঙ্কনও। তিনি করেন ৫৭ রান। 

শেষের দিকে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের ৪০ রানের ইনিংসে ভর করে ২২১ রানের পুঁজি পায় তামিমের দল। বল হাতে ৩৪ রানের বিনিময়ে ৪ উইকেট শিকার করেন পেসার রুবেল হোসেন। 

জবাব দিতে নেমে মাহমুদুউল্লাহ'র দলও শুরুতে হোঁচট খায়। দলীয় ৮ রানে প্যাভিলিয়নে ফেরেন দুই ওপেনার নাঈম শেখ ও লিটন দাস। তবে মাহমুদুল হাসান জয় এবং ইমরুল কায়েসের দৃঢ় ব্যাটিংয়ে পথ হারায়নি রিয়াদ বাহিনী। জয় করেন ৫৮ রান। ফিফটি মিস করলেও, অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান ইমরুল কায়েসের ৪৯ রানের ইনিংসে, জয়ের ভিত্তি পায় রিয়াদের দল। 

অধিনায়ক সুলভ ইনিংস খেলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তার ৬৭ রানে ভর করে, ৫ বল বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় তার দল। ফলে জমে উঠলো টুর্নামেন্টটাও।

বুধবার তামিম ও নাজমুল একাদশের ম্যাচের পর জানা যাবে কারা খেলবে এই টুর্নামেন্টের ফাইনালে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএ/আরএস