জোন্সকে বাঁচাতে আপ্রাণ চেষ্টা করেছিলেন লি

ঢাকা, বুধবার   ২১ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ৬ ১৪২৭,   ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

জোন্সকে বাঁচাতে আপ্রাণ চেষ্টা করেছিলেন লি

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:৪৪ ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০  

ডিন জোন্স ও ব্রেট লি

ডিন জোন্স ও ব্রেট লি

বৃহস্পতিবার সকাল বেলাও একসঙ্গেই নাস্তা করেছেন ডিন জোন্স ও ব্রেট লি। কেউ কি তখনো জানতেন, একটু পরই সব মায়া কাটিয়ে চলে যাবেন জোন্স? তবে হয়েছে এমনই। চোখের সামনে সহকর্মীকে লুটিয়ে পড়তে দেখে তাকে বাঁচানোর জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করেছিলেন ব্রেট লি। তবে শেষ পর্যন্ত সফল হননি তিনি। বলা যায় এই পেসারের সামনেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন অজি কিংবদন্তি। 

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) স্টার স্পোর্টসের হয়ে ধারাভাষ্য সহ বেশ কিছু অনুষ্ঠানে একসঙ্গে কাজ করছিলেন জোন্স ও লি। ম্যাচ শুরুর আগে ‘সিলেক্ট ডাগ আউট’ শো-তে বিশ্লেষকের ভূমিকায় জোন্সের ব্রেট লি ছাড়াও সঙ্গে ছিলেন নিউজিল্যান্ডের সাবেক ক্রিকেটার স্কট স্টাইরিস। ধারাভাষ্যের কাজে একসঙ্গে মুম্বাইয়ে ছিলেন তারা। হোটেল লবিতে জোন্স হার্ট অ্যাটাকে আক্রান্ত হওয়ার সময় তার সঙ্গেই ছিলেন লি। এ সময় জোন্সকে জাগিয়ে তুলতে যথাসাধ্য চেষ্টা করেন তিনি। বাকিদের সাহায্য চেয়েছিলেন, ডেকেছিলেন অ্যাম্বুলেন্সও। 

জোন্সের বিদায়ের ব্যাপারে সংবাদমাধ্যমকে লি বলেন, ‘সে একজন প্রশ্নাতীত কিংবদন্তি। আমি বলব, জোন্সের জন্যই আজকের ডাগ আউট শো। আমি নিশ্চিত সে চাইত, আমরা যে খেলাটিকে আমরা ভালোবাসি তার স্বার্থেই অনুষ্ঠানতি চালিয়ে যাই। জোন্সের পরিবার এবং বন্ধু বর্গের প্রতি সমবেদনা জানাই। বাস্তবিকভাবেই আজকের দিনটা সবার জন্য ভীষণ কঠিন ছিল।’ 

জোন্সের বিষয়ে কথা বলেছেন স্কট স্টাইরিসও। নিউজিল্যান্ডের সাবেক এ অলরাউন্ডার বলেন, ‘আজ (কাল) সকালে ঘুম ভাঙার পর জোন্সের সঙ্গে আমি নাশতা করেছি। এরপর সে একটু দৌড়েছে। এভাবেই জোন্স নিজেকে ফিট রাখত। হ্যাঁ, মুম্বাইয়ে আমরা জৈব সুরক্ষিত পরিবেশের মধ্যেই আছি। কিন্তু কে ভেবেছিল কয়েক ঘণ্টা পরই তার হৃদ্‌যন্ত্রে সমস্যা দেখা দেবে।’

অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটের অন্যতম সেরা তারকা ডিন জোন্স ১৯৮৪ থেকে ১৯৯২ সাল পর্যন্ত মাঠ মাতান। ৫২ টেস্ট আর ১৬৪টি ওয়ানডে খেলে ৯ হাজার ৬৯৯ (টেস্টে ৩,৬৩১ আর ওয়ানডেতে ৬০৬৮) রান করেছেন তিনি। টেস্টে ৪৬.৫৫ গড়ে খেলার পথে হাঁকিয়েছেন ১১টি শতক। ওয়ানডেতেও আছে ৭টি সেঞ্চুরি ও ৪৬টি ফিফটি। 

২০১৯ সালে অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটের ‘হল অব ফেমে’ জায়গা পান জোন্স। ক্রিকেট ছাড়ার পর থেকেই কোচিং ও ধারাভাষ্যের সঙ্গে জড়িয়ে ছিলেন তিনি। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত আইপিএলে ধারাভাষ্য দিয়েছেন সাবেক এই ক্রিকেটার।

ডেইলি বাংলাদেশ/এএল