‘ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক না দেয়ার অভিযোগ ভিত্তিহীন’

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২২ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ৭ ১৪২৭,   ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

‘ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক না দেয়ার অভিযোগ ভিত্তিহীন’

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:২১ ৪ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ২১:২৩ ৪ আগস্ট ২০২০

বিপিএলে ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক না দেয়ার অভিযোগ ভিত্তিহীন বললো বিসিবি

বিপিএলে ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক না দেয়ার অভিযোগ ভিত্তিহীন বললো বিসিবি

ফেডারেশন অব ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন (ফিকা)-এর সর্বশেষ প্রকাশিত বার্ষিক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বজুড়ে যেসব ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ক্রিকেট টুর্নামেন্টগুলো খেলা হয় তার এক-তৃতীয়াংশের বেশি ক্রিকেটারের পারিশ্রমিক পেতে দেরি হয় কিংবা অনেকে একেবারেই পারিশ্রমিক পান না। ফিকার প্রকাশিত সেই ছয়টি টুর্নামেন্টগুলোর মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) নামও। তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ফিকা’র এই প্রতিবেদনকে ভিত্তিহীন বলে দাবি করছে।

প্রকৃতপক্ষে বিপিএলে পারিশ্রমিক না দেয়ার বিষয়টি বিচ্ছিন্ন একটি ঘটনা উল্লেখ করেছে এবং আইসিসি ইভেন্টের পুরস্কার না দেয়ার অভিযোগটির তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে রিপোর্টটি প্রত্যাখ্যান করেছে দেশের ক্রিকেটের অভিভাবক সংস্থা।

মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিসিবি জানায়, বিসিবি স্পষ্টভাবে জানাতে চায় যে, ‘বিপিএল এ শুধুমাত্র ৪ জনের বেতনের বিষয়টি অমিমাংসিত রয়েছে। এদের মধ্যে তিনজন বিদেশি ক্রিকেটার এবং একজন কোচ। ২০১৮ সালে বিপিএলের ষষ্ঠ আসরে অংশ নেয়া কেবলমাত্র একটি দল এই কাজটি করেছে। ১৭০ জনেরও বেশি স্থানীয় ও বিদেশি ক্রিকেটার এবং সাপোর্ট স্টাফের অংশগ্রহনে অনুষ্ঠিত লিগে এটি ছিল বিচ্ছিন্ন একটি ঘটনা’।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, ‘২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে এপ্রিলের কোনো এক সময় ক্রিকেটার ও কোচদের প্রতিনিধিদের কাছ থেকে তারা কিছু অভিযোগ পেয়েছে। যেখানে বলা হয়েছে ফ্রাঞ্চাইজিগুলো দায়িত্ব পালনের বিষয়ে ব্যর্থ হয়েছে এবং সম্পুর্ণ পাওনা পরিশোধ করেনি। নিয়ম অনুযায়ী চুক্তিভুক্ত ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টাফদের বেতন সরাসরি পরিশোধের দায়িত্ব ফ্র্যাঞ্চাইজির’।

অভিযুক্ত ফ্র্যাঞ্চাইজিদের এসব কার্যক্রমের বিরুদ্ধে এরইমধ্যে আইনগত প্রক্রিয়া শুরু করেছে বিসিবি। 

ধারণা করা হচ্ছে, সিলেট সিক্সার্স তাদের কোচ ওয়াকার ইউনুস ও অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং তারকা ডেভিড ওয়ার্নার সহ আরো দুই ক্রিকেটারের বেতন পরিশোধে ব্যর্থ হয়েছে। 

বিসিবি প্রত্যোকের সঙ্গে এবং প্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছে। তারা বিসিবির প্রতিটি পদক্ষেপ সম্পর্কে অবগত রয়েছে।

এদিকে আইসিসি ইভেন্টের প্রাইজমানির টাকা পরিশোধ না করা সংক্রান্ত ফিকার অভিযোগের তীব্র নিন্দা জানিয়ে বিসিবি দাবী করেছে যে এরইমধ্যে বোনাসের সব অর্থই পরিশোধ করেছে বোর্ড।  

ফিকার রিপোর্টের প্রতিবাদ লিপিতে বোর্ড জানায়, ‘ফিকার সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আইসিসি পূর্ণ সদস্য দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ তাদের ক্রিকেটারদের আইসিসি ইভেন্ট থেকে পাওয়া প্রাইজমানির অর্থ বিতরণ করেনি বলে যে অভিযোগ করেছে সেটি সম্পুর্ণভাবে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন’।

‘আইসিসির বিগত সবগুলো ইভেন্টের প্রাইজমানিই এরইমধ্যে বন্টন করে দিয়েছে বোর্ড। এমনকি সর্বশেষ ২০১৯ সালে ইংল্যান্ডে ও ও্য়েলসে অনুষ্ঠিত আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপের প্রাইজমানিও দেয়া হয়েছে। এমনকি কোনো কোনো ক্রিকেটারকে তার দক্ষতা অনুযায়ী বাড়তি প্রণোদনাও দেয়া হয়েছে’।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএস