ভুল-শুদ্ধ বানানের শিক্ষণীয় কথোপকথন

ঢাকা, শনিবার   ০৮ মে ২০২১,   বৈশাখ ২৫ ১৪২৮,   ২৫ রমজান ১৪৪২

ভুল-শুদ্ধ বানানের শিক্ষণীয় কথোপকথন

সোশ্যাল মিডিয়া ‌ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৪৬ ১৫ এপ্রিল ২০২১  

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

-শুভ নববর্ষ। বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা। নতুন বছরে যা করলে তুমি! 

-আমি আবার কী করলাম! বানানের কথা বলছ? 

-তা নয়তো কী? যদি পোস্টটা একটু আগে দিতে, তাহলে আর কষ্ট করে লেখা একশ ‘শুভ নববর্ষ’ ঠিক করতে হতো না, এক বারেই করে  দিতে পারতাম। 

-তো নববর্ষের মন্তব্যে কী উইশ করেছ? 

-সকলের সুস্থ্যতা কামনা করেছি আর মানুষের মনের কষ্ট-ব্যাথা দূর হোক এই প্রার্থনায় করেছি। ঠিক করেছি কি-না? 

-নিশ্চয় তোমার এই প্রার্থনা পূরণ হবে, তবে… 

-তবে কী? বানান ভুল লিখেছি? তাই প্রার্থনা পূরণ নাও হতে পারে? 

-ও! আমি কি তাই বলেছি? 

-ওই যে তবে বললে। ওটাতেই বুঝেছি কিছু একটা গোলমাল আছে। তো বলো দেখি, কী করেছি? 

-তুমি কিন্তু আমাকে বেশ পড়তে পারো! 

-না পারার কী আছে শুনি? এবার বলো ভুলটা কোথায়? 

-তেমন কিছু নয়। সুস্থ্যতা বানানে অকারণে য-ফলা দিয়ে তার ‘সুস্থতা’ নষ্ট করেছ, এই যা! 

-ইশ! এটা একটা অনিচ্ছাকৃত ভুল। আর হবে না। সুস্থতা বানান য-ফলা ছাড়াই। আর কোনো ভুল? 

-হুম, যেভাবে ‘কষ্ট-ব্যাথা’ লিখেছ, তাতে ব্যাথা থেকে আ-কার না সরালে ‘ব্যথা’ যে যাবে না, এটি নিশ্চিত।

-এটা তুমি ঠিক বলেছ, তবে এই ‘ব্য’ নিয়ে বেশ ধন্দে আছি আমি। কোথায় ‘ব্যা’ আর কোথায় 'ব্য' হবে এর একটা সহজ নিয়ম চাই। আছে কিছু? 

-কেন থাকবে না? নিশ্চয় আছে। জানতে চাও?

-প্লিজ বলো। এটা জানলে শুধু আমি নই, অনেকেই উপকৃত হবে। তবে খুব বেশি নিয়ম বলো না, যা মনে রাখতে পারি তাই বলো। 

-মানে যে-কোনো একটা বললেই হবে, তাই তো? 

-যা ভালো বোঝো! 

-তবে শোনো। ‘ব্যা’ উচ্চারণে বিদেশি সকল শব্দ বাংলাতে ‘ব্যা’ দিয়ে লিখবে। বুঝেছ? 

-উদাহরণ দাও।

-ব্যানার, ব্যারিকেড, ব্যাগ, ব্যাট…এমন
-দাঁড়াও, বুঝেছি। ব্যারিস্টার, ব্যান্ডেজ, ব্যাংক…এমন, তাই তো? 

-একদম। সহজ হয়েছে এবার?

-বিউটিফুল। আরেকটা নিয়ম বলো সহজ করে। 
-আরেকটা নিয়ম? 

-হুম, তাই তো বললাম।

-ও কে। ক, খ, ঘ এর আগে শব্দগঠন সবসময় ‘ব্যা’ দিয়ে হবে। যেমন-ব্যাকুল, ব্যাকরণ, ব্যাখ্যা, ব্যাঘ্র… এমন। 

-বাহ্, দারুণ! এমনই তো চাই। আরও নিয়ম আছে কি? 

-আছে তো! বলব? 

-আর একটা বলতে পারো, মনে রাখতে পারব নিশ্চয়।

-বলছি শোনো। স, হ, দ ও প এর আগে সাধারণত ‘ব্যা’ দিয়েই শব্দগঠন হয়। 

-অসাধারণ বলেছ। দাঁড়াও একটু বুঝে নিই। ব্যাস, ব্যাহত, ব্যাদান, ব্যাপক… দারুণ, দারুণ! এই তো পেরেছি। আর ভুল হবে না। তুমি একটা জিনিয়াস! 

-তাই বুঝি?

-নিশ্চয়। এতদিন কেন যে বুঝিনি!

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে