মানুষের থেকে জন্তুরা বেশি দয়াবান হওয়ার রহস্য

ঢাকা, বুধবার   ২৫ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১১ ১৪২৭,   ০৮ রবিউস সানি ১৪৪২

মানুষের থেকে জন্তুরা বেশি দয়াবান হওয়ার রহস্য

বিজ্ঞান ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:২৭ ২৯ অক্টোবর ২০২০  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

জন্তুরা একে অপরের সাহায্যে এগিয়ে আসে। কিন্তু কেন? এই প্রশ্ন খুঁজতে গিয়েই উঠে এসেছে একটি শব্দ 'অলট্রুইজম'। সম্প্রতি এর ব্যাখ্যা দিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

ইন্ডিয়ান ইন্সটিটিউট অব বেঙ্গালুরুর সেন্টার ফর ইকোলজিকাল সায়েন্স থেকে রাঘবেন্দ্র গরগকর এই বিষয়টি নিয়ে লিখেছেন। কেন জন্তুরা পরস্পরের প্রতি সহনশীল- সেটা বিজ্ঞান বিশ্লেষণ করে দিয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তার মতে, অন্যের ভালো থাকা এবং তাকে ভালো রাখার জন্য যখন কেউ এগিয়ে আসে তাকেই বলে অলট্রুইজম। নিজের ভালো, মন্দ বিচার না করে যখন কেউ অন্যের স্বার্থ দেখে তখনই এই শব্দের সঠিক মানে বোঝা যায়।

প্রজনন তত্ত্ব বা জেনেটিক্স নিয়ে রচিত একটি বইয়ে তিনি জ্ঞাতি বা আত্মীয় বেছে নেয়ার তত্ত্ব আলোচনা করেন। সেখানে তিনি বলেন যে অলট্রুইজম একটি জিন নির্ভর ব্যাপার, যা জন্তুদের ব্যবহারের উপর তীব্র প্রভাব ফেলে।

আত্মীয় নির্বাচনের ক্ষেত্রে হ্যালডেনের এই অলট্রুইজম শব্দটি বিশেষ ভূমিকা পালন করে। তিনি বলছেন যদি তার দুই ভাই একসঙ্গে ডুবে যায় তা হলে তিনি নিজের প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে তাদের বাঁচাবেন। তবে যদি একজন ডুবে, তা হলে হয়তো তিনি এই সিদ্ধান্ত নিবেন না।

জেনেটিক্সের বিবর্তনের ক্ষেত্রে অলট্রুইজমের ভূমিকা নিয়ে ১৯৬৪ সালে উইলিয়াম ডোনাল্ড হ্যামিলটন একটি তত্ত্ব তুলে ধরেন। এতে তিনি ইনক্লুসিভ ফিটনেস বলে একটি শব্দ ব্যবহার করেন। যার অর্থ হল ফিটনেস আমাদের জিনের মধ্যে সঞ্চিত থাকে যা এক প্রজাতি থেকে আরেক প্রজাতিতে ছড়িয়ে যায়। একজন আত্মীয় আরেকজনকে এই ব্যাপারে আগ্রহী করে তোলে। একে বলা হচ্ছে হ্যামিলটন রুল। যা বলছে এই ইনক্লুসিভ ফিটনেস জিনের মধ্যে থেকেই অলট্রুইজম গড়ে তোলে।

জেরাল্ড এস উইলকিনসন যিনি ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন অধ্যাপক কোস্টারিকার বাদুড়দের উপরে একটি পরীক্ষা করেছিলেন। তিনি লক্ষ্য করে দেখেছেন যে যখন খাবার ভাগ করে খাওয়ার পরিস্থিতি আসে, বাদুড়রা তাদের সঙ্গেই খাবার ভাগ করে নিচ্ছে যারা অতীতে তাদের সাহায্য করেছে। এই মুহূর্তে অলট্রুইজম কী ভাবে পাখিদের উপরে, বিশেষ করে কাকের ওপরে কাজ করে সেই নিয়ে পরীক্ষা চলছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস