বমি করলে বা অজ্ঞান হয়ে গেলে কী রোজা ভেঙে যাবে?

ঢাকা, শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২,   ১৬ আষাঢ় ১৪২৯,   ০১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

বমি করলে বা অজ্ঞান হয়ে গেলে কী রোজা ভেঙে যাবে?

ধর্ম ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:০৮ ১১ এপ্রিল ২০২২  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

চলছে সিয়াম সাধনের মাস রমজান। পবিত্র এই মাসে প্রত্যেক মুসলিম সিয়াম পালন করেন। রাত জেগে ইবাদত করেন। সারাদিন হাজারো কষ্ট সহ্য করে মুসলিমরা রোজা রাখেন কেবল মাত্র আল্লহর সন্তুষ্টি ও গুনাহ মাফের আশায়। 

তাইতো রোজা যেন ছোট ছোট কোনো কারণে ভেঙে না যায় সেদিকে নজর রাখেন সবাই। এছাড়া রোজা ভাঙা নিয়ে অনেকের মনে থাকে হাজারো প্রশ্ন। তার মধ্যে একটি প্রশ্ন হচ্ছে, রোজা অবস্থায় বমি করলে বা অজ্ঞান কিংবা বেহুশ হয়ে পড়লে কি রোজা ভেঙে যাবে?

আসলে রোজা অবস্থায় বমি হলে রোজা ভাঙবে কি-না, এ নিয়ে অনেকেই আমরা উদ্বিগ্ন হয়ে থাকি। এ ব্যাপারে ইসলামের নির্দেশনা হচ্ছে, বমির পরিমাণ বেশি হোক বা কম, সেটা খাদ্য বমি হোক বা রক্ত বমি, মনে রাখতে হবে—রোজা হলো পানাহার না করার নাম। বমি হলে তো পানাহার করা হয় না; বরং তার বিপরীত হয়। তাই রোজা অবস্থায় বমি হলে রোজা ভাঙ্গবে না।

তবে বমি হওয়ার পর রোজা পালনে সক্ষম হলে তা পূর্ণ করবে; অক্ষম হলে রোজা ছেড়েও দিতে পারবে। এ রোজা পরে কাজা আদায় করতে হবে; কাফফারা প্রয়োজন হবে না। বমি মুখে আসার পর তা গিলে ফেললে রোজা ভেঙে যাবে। ইচ্ছাকৃত বমি করলে রোজা ভঙ্গ হবে। এমতাস্থায় কাজা ও কাফফারা উভয়টাই আদায় করতে হবে।

অনুরূপভাবে কোনো কারণে অজ্ঞান হলে (যাতে সাধারণত রোজার বিপরীত কিছু ঘটে না), রোজা ভঙ্গ হবে না। তবে দুর্বলতা বা অসুস্থতার কারণে প্রয়োজনে পানাহার বা ওষুধ সেবনে রোজা ভাঙ্গলে পরে কাজা আদায় করে নিতে হবে।

উল্লেখ্য, অনিচ্ছাকৃত বমি হওয়া ও অজ্ঞান হওয়া অজু ভঙ্গের কারণ; রোজা ভঙ্গের কারণ নয়।

(ফতোয়ায়ে তাতারখানিয়া)।

ডেইলি বাংলাদেশ/এএ

English HighlightsREAD MORE »