চেয়ারে বসে পড়লে কি নামাজ হবে?  

ঢাকা, সোমবার   ১৯ এপ্রিল ২০২১,   বৈশাখ ৬ ১৪২৮,   ০৬ রমজান ১৪৪২

চেয়ারে বসে পড়লে কি নামাজ হবে?  

ধর্ম ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:১৯ ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

উঠে বসে নামাজ পড়তে অক্ষম ব্যক্তি চেয়ারে বসে নামাজ আদায় করতে পারবেন

উঠে বসে নামাজ পড়তে অক্ষম ব্যক্তি চেয়ারে বসে নামাজ আদায় করতে পারবেন

আজকাল চেয়ারে বসে নামাজ পড়ার প্রবণতা খুব বেশি দেখা যাচ্ছে। অনেক মানুষ তো শুধু আরামের জন্য চেয়ারে বসে নামাজ আদায় করেন। আবার কিছু মানুষ যদিও তাদের রুকু সিজদা করতে কষ্ট হয়, কিন্তু জমিনে বসে ইশারায় রুকু সিজদা করতে পারেন। তা সত্ত্বেও তারা নির্দ্বিধায় চেয়ারে বসে নামাজ আদায় করেন।আবার অনেকেই আছেন অসুস্থতার কারণে চেয়ারে বসে কিংবা মাটিতে বসে নামাজ পড়েন। এই বিষয়ে অনেকেই অনেক মত দিয়ে থাকেন। 

কোরআনে কারিমের মধ্যে আল্লাহ সুবানাহুতায়ালা বলেছেন, ‘তোমাদের সাধ্যে যতটুকু কুলায়’ (সূরা-তাগাবু)। সুতরাং কেউ যদি দাঁড়াতে না পারেন, তিনি বসে পড়বেন; কেউ যদি বসতে না পারেন, তিনি শুয়ে পড়বেন; আর শুয়েও পড়তে না পারলে তিনি যেভাবে পারেন, সেভাবেই নামাজ পড়বেন। এটি আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের বিধান। 

ইমরান ইবনে হুসাইন (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, ‘আমি আল্লাহর রাসূল (সা.)-কে বসে সালাত আদায়কারীর ব্যক্তি সম্পর্কে প্রশ্ন করলাম। তিনি বলেন, যে ব্যক্তি দাঁড়িয়ে সালাত আদায় করল সে উত্তম আর যে ব্যক্তি বসে সালাত আদায় করল তার জন্য দাঁড়ানো ব্যক্তির অর্ধেক সওয়াব। আর যে শুয়ে আদায় করল, তার জন্য বসে সালাত আদায়কারীর অর্ধেক সওয়াব।’ (বুখারি, হাদিস : ১১১৬)

এ হাদিসের আলোকে ইসলামী আইনবিদরা লিখেছেন, দাঁড়িয়ে নামাজ পড়তে সক্ষম ব্যক্তির জন্য ফরজ ও ওয়াজিব নামাজ বসে পড়া শুদ্ধ নয়। (বুখারি, হাদিস : ১০৫০)

তবে হ্যাঁ, কোনো সমস্যা বা ওজরের কারণে বসে নামাজ পড়তে পারবে।আর দাঁড়িয়ে নামাজ পড়তে সক্ষম ব্যক্তির জন্য নফল নামাজ বসে পড়া জায়েজ। (বুখারি, হাদিস : ১০৪৯)

যে ব্যক্তি বসে নামাজ পড়বে সে তাশাহহুদের মতো করে বসবে। (মুসান্নাফে ইবনে আবি শায়বা : ২/৫২৭) দাঁড়িয়ে নফল নামাজ শুরু করা ব্যক্তি বসে তা পরিপূর্ণ করতে পারে, তাতে কোনো অসুবিধা নেই। (সহিহ বুখারি, হাদিস : ৪/২৭৪)

ইমাম আবু হানিফা (রহ.)-এর মতে, কোনো ওজর ছাড়াও জাহাজের ওপর বসে নামাজ পড়া জায়েজ। (সুনানে কুবরা, হাদিস : ৫৭০২)। রুকু-সিজদায় সক্ষম ব্যক্তির জন্য জাহাজে ইশারা করে নামাজ পড়া শুদ্ধ নয়। (বুখারি, হাদিস : ১০৫০)

মানব শরীরের অস্থিসন্ধি বা জয়েন্ট গুলো অনেকটাই কব্জা, বেয়ারিং বা তালার মত। নিয়মিত ব্যবহার করলেই বরং এগুলো ভাল থাকে। তাই উঠা-বসা, হাঁটু ভাঁজ সহ নামাজের নিয়ম গুলো মানব শরীরের জন্য ক্ষতিকর তো নয়ই বরং উপকারী। কারণ আমার কোটি কোটি বছর ধরে এই মুভমেন্ট গুলো করছি। বরং আধুনিক যুগে আমার অতিমাত্রায় অলস আর নাড়াচাড়া হীন কাজে আর জীবনে অভ্যস্ত হয়ে নিজেদের সর্বনাশ ডেকে আনছি। তবে অনেকেই জানেন না, আপনি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ যদি উঠে বসে পড়েন, তাহলে শরীরের অস্থিসন্ধি বা জয়েন্ট গুলো ক্ষয় হওয়া এবং ব্যথা হওয়া থেকে রক্ষা করবে।  

ডেইলি বাংলাদেশ/কেএসকে