পৃথিবীর সর্বোচ্চ নিরাপত্তায় বাস্তবায়ন হয়েছে পদ্মাসেতু: মন্ত্রিপরিষদ সচিব
15-august

ঢাকা, সোমবার   ০৮ আগস্ট ২০২২,   ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯,   ০৯ মুহররম ১৪৪৪

Beximco LPG Gas
15-august

পৃথিবীর সর্বোচ্চ নিরাপত্তায় বাস্তবায়ন হয়েছে পদ্মাসেতু: মন্ত্রিপরিষদ সচিব

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:০৬ ২১ মে ২০২২   আপডেট: ১৯:২৬ ২২ মে ২০২২

শরীয়তপুর পুলিশ লাইন্স মিলনায়তনে ‘উগ্রবাদ প্রতিরোধে জনপ্রতিনিধি ও অন্যান্য অংশীজনের ভূমিকা’ শীর্ষক এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম

শরীয়তপুর পুলিশ লাইন্স মিলনায়তনে ‘উগ্রবাদ প্রতিরোধে জনপ্রতিনিধি ও অন্যান্য অংশীজনের ভূমিকা’ শীর্ষক এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম

পৃথিবীর সর্বোচ্চ পর্যায়ের নিরাপত্তা দিয়ে পদ্মাসেতু বাস্তবায়ন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

শনিবার শরীয়তপুর পুলিশ লাইন্স মিলনায়তনে ‘উগ্রবাদ প্রতিরোধে জনপ্রতিনিধি ও অন্যান্য অংশীজনের ভূমিকা’ শীর্ষক এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিকতা ও কঠোর নির্দেশনার কারণে শত চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে আমরা সৎভাবে পদ্মাসেতু নির্মাণ করতে পেরেছি। আগামী মাসের শেষ সপ্তাহের আগে আমরা পদ্মাসেতু খুলে দেব।

তিনি বলেন, পদ্মাসেতুর জন্য শরীয়তপুরের পদ্মাপাড়ের মানুষ সবচেয়ে বেশি সহযোগিতা করেছেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আখতার হোসেন বলেন, আমাদের দেশের স্বাধীনতার পেছনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের চেষ্টা ও স্বপ্ন কাজ করেছে। এই বাংলা হাজার বছর ধরে শোষণ-বঞ্চনা ও দারিদ্র্যের দুষ্টচক্রের ভেতর ছিল। শিক্ষা ছিল না, রাস্তা-ঘাট ও মানুষের কর্মসংস্থান ছিল না। মানুষের ওপর নির্যাতন অত্যাচার হয়েছে। সেই জায়গা থেকে বাঙালি জাতিকে স্বাধীনতা ও মুক্তি দেওয়ার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আন্দোলন সংগ্রাম করেছিলেন। বঙ্গবন্ধু স্বপ্ন দেখেছিলেন সোনার বাংলা গড়ার। তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করছেন।

আরো পড়ুন> শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনে অবরুদ্ধ গণতন্ত্র শৃঙ্খলমুক্ত হয়েছিল: ওবায়দুল কাদের

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, বাংলাদেশের মানুষের সঙ্গে উগ্রবাদীর কোনো সম্পর্ক নেই। উগ্রবাদ একটি বিজাতীয় সংস্কৃতি। আমাদের দেশে বারবার এ বিজাতীয় সংস্কৃতি আছড়ে পড়ার চেষ্টা করেছে এবং প্রতিবারই আমরা এ দেশের শান্তিপ্রিয় মানুষের সহায়তা নিয়ে এদের নির্মূল করেছি।

শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক মো. পারভেজ হাসানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- র‍্যাব মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন, ভারপ্রাপ্ত ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার মো. হেলাল মাহমুদ শরীফ, ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান, শরীয়তপুরের পুলিশ সুপার এস এম আশরাফুজ্জামান।

এ সময় বিভিন্ন জেলার জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউপি চেয়ারম্যান-সদস্য, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, ইমাম, সাংবাদিকসহ সুধী সমাজের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএস/এইচএন

English HighlightsREAD MORE »