দুর্নীতিমুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় হবে শাবিপ্রবি: উপাচার্য

ঢাকা, বুধবার   ০৫ অক্টোবর ২০২২,   ২০ আশ্বিন ১৪২৯,   ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Beximco LPG Gas

দুর্নীতিমুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় হবে শাবিপ্রবি: উপাচার্য

শাবিপ্রবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:৩৭ ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২২  

৩১তম বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের শোভাযাত্রায় শাবিপ্রবি ভিসি।

৩১তম বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের শোভাযাত্রায় শাবিপ্রবি ভিসি।

শাবিপ্রবি হবে দুর্নীতিমুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়। এখানে দুর্নীতির কোনো ঠাঁই থাকবে না। দুর্নীতি নির্মূলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কাজ করে যাচ্ছে। এ ছাড়া শিক্ষার্থীদের মান সম্পন্ন হিসেবে গড়ে তুলতে আমরা সর্বদা তৎপর আছি বলে মন্তব্য করেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।

সোমবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে গোল চত্বরে শাবিপ্রবির ৩১তম বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে এ মন্তব্য করেন তিনি। 

এর আগে সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন-২ এর সামনে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ জাতীয় পতাকা ও কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন করেন এবং সকাল ১০টা ১০ মিনিটে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পন করা হয়। পরে ১০টা ২০ মিনিটে বঙ্গবন্ধু চত্বর থেকে একটি আনন্দ শোভাযাত্রা বের হয়ে ক্যাম্পাসের প্রধান সড়কসমূহ প্রদক্ষিণ করে গোল চত্বরে এসে শেষ হয়। পরে কেক কেটে বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন করা হয়।

আনন্দ শোভাযাত্রা শেষে গোল চত্বরে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। 

এসময় তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে সবাইকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই। শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি যারা এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় কাজ করে গেছেন। আরো স্মরণ করছি যারা আমার আগে উপাচার্য হিসেবে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে নেতৃত্ব দিয়ে গেছেন। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের এই ৩১তম জন্মদিনে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক শিক্ষার্থী ও সিলেটবাসীর প্রতি আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করছি। শাবিপ্রবি দেশের প্রথম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে অনন্য ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই শিক্ষা ও গবেষণায় কৃতিত্ব অর্জন করে যাচ্ছে। আগামীতে এ বিশ্ববিদ্যালয় দেশে রোল মডেল হিসেবে গড়ে ওঠবে। 

উপাচার্য বলেন, শাবিপ্রবিতে পড়াশোনা করে প্রতিবছর ভালোমানের গ্র্যাজুয়েটরা বের হচ্ছে। পরবর্তীতে তারা দেশে ও বিদেশে বিভিন্ন সেক্টরে সফলতা অর্জন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম কুড়িয়ে আনছে।

তিনি আরো বলেন, শিক্ষার্থীদের যাতায়াত সমস্যা দূরীকরণে আমরা এরইমধ্যে ১৪টি বাস চালু করেছি। আগামীতে আরো নতুন চারটি বাস চালু করবো। এছাড়া আমি এ বিশ্ববিদ্যালয়ে আসার পর এ বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা খাতে বরাদ্দ ছিল ৯০ হাজার টাকা। এখন এটি বেড়ে হয়েছে ৭ কোটি ২০ লাখ টাকা। বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে আগামীতে গবেষণা বাজেট আরো বৃদ্ধি করা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামো সম্পর্কে উপাচার্য বলেন, আমরা অবকাঠামোর দিক দিয়ে অনেক এগিয়ে গেছি। ক্যাম্পাসের সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করা হয়েছে। একাডেমিক ভবন ও মেয়েদের হলের কাজ চলমান। এছাড়া শিক্ষার্থীদের খাবার সমস্যা দূরীকরণে আধুনিক মডেলের অনেকগুলো টং দোকান তৈরি করা হবে। আমাদের অবকাঠামো উন্নয়নে যে কাজ করা হচ্ছে তাতে আগামী একশ বছরে আর কোনো অবকাঠামো তৈরি করা লাগবে না। সবশেষে, আগামীতে বিশ্ববিদ্যালয়কে বিশ্বের অনন্য একটি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গড়ে তুলতে সকল ভেদাভেদ ভুলে একসাথে কাজ করতে শিক্ষক শিক্ষার্থী ও সর্বস্তরের মানুষের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

উল্লেখ্য, ১৯৮৬ সালে ২৫ আগস্ট দেশের প্রথম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয় সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। ১৯৯১ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি (১লা ফাল্গুন) সিলেটের কুমারগাঁওয়ে ৩২০ একর জায়গার উপর ৩টি বিভাগ, ১৩ জন শিক্ষক এবং ২০৫ জন শিক্ষার্থী নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে একাডেমিক কার্যক্রম শুরু করে শাবিপ্রবি। এরপর থেকে প্রতিবছর ১৩ ফেব্রুয়ারি (১ ফাল্গুন) ধারাবাহিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয় দিবস পালন করা হলেও গত ২ বছর ধরে বাংলা দিনপঞ্জির সাথে মিল রেখে পহেলা ফাল্গুন (১৪ ফেব্রুয়ারি) দিনটিকে বিশ্ববিদ্যালয় দিবস হিসেবে উদযাপন করা হচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম

English HighlightsREAD MORE »