বাংলাদেশ থেকে সমুদ্রপথে সরাসরি ইতালিতে পণ্য রফতানি শুরু

ঢাকা, বুধবার   ০৫ অক্টোবর ২০২২,   ২১ আশ্বিন ১৪২৯,   ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Beximco LPG Gas

বাংলাদেশ থেকে সমুদ্রপথে সরাসরি ইতালিতে পণ্য রফতানি শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:১৯ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৬:২৯ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২

এমভি সোঙ্গা চিতা। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

এমভি সোঙ্গা চিতা। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে কনটেইনারভর্তি রফতানি পণ্য নিয়ে ইতালির উদ্দেশ্যে যাত্রা করেছে  লাইবেরিয়ার পতাকাবাহী জাহাজ এমভি সোঙ্গা চিতা। এর মধ্য দিয়ে সমুদ্রপথে সরাসরি ইউরোপে পণ্য পাঠানো শুরু করলো বাংলাদেশ।

সোমবার জাহাজের স্থানীয় প্রতিনিধি রিলায়েন্স শিপিং অ্যান্ড লজিস্টিকস লিমিটেডের চেয়ার‌ম্যান মোহাম্মদ রাশেদ ডেইলি বাংলাদেশকে এ তথ্য জানিয়েছেন। 

তিনি বলেন, জাহাজটি সোমবার দুপুর ২টা ৫৫ মিনিটে ৯৫২ একক কনটেইনার নিয়ে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে যাত্রা শুরু করে। এটি সরাসরি ইতালি যাবে। এর মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশ থেকে ইউরোপে সরাসরি পণ্য রফতানি শুরু হলো। 

তিনি আরো বলেন, জাহাজটিতে ৯৮ শতাংশ তৈরি পোশাক শিল্পের মালামাল রয়েছে। সোঙ্গা চিতা ১৫ থেকে ১৬ দিনের মধ্যে ইতালির রেভেনা বন্দরে পৌঁছাবে বলে আশা করি। 

আরো পড়ুন>>> সাতকানিয়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় প্রাণ গেল ২ জনের

মোহাম্মদ রাশেদ বলেন, সরাসরি জাহাজ চালু হওয়ায় ৪০ শতাংশ খরচ কমবে। আপাতত বাংলাদেশ থেকে একটি জাহাজ চলাচল করবে। সফলতা পেলে জাহাজের সংখ্যা বাড়ানো হবে। 

এদিকে বাংলাদেশ থেকে সমুদ্রপথে সরাসরি ইতালিতে পণ্য পাঠানোর বিষয়টিকে যুগান্তকারী পদক্ষেপ বলছেন রফতানি সংশ্লিষ্টরা। তাদের মতে, এর ফলে সময় ও অর্থ বাঁচবে।  

শিল্প সংশ্লিষ্ট এবং বন্দরের কর্মকর্তারা বলছেন, এতদিন বাংলাদেশের তৈরি পোশাকসহ বিভিন্ন পণ্য অন্য দেশের বন্দর হয়ে ইউরোপে রফতানি হতো। সেখানে অনেকদিন অপেক্ষায় থাকতো হতো বড় জাহাজের বুকিং পেতে। এভাবে বাংলাদেশ থেকে ইউরোপে পণ্য পৌঁছাতে সময় লাগতো ৪০ থেকে ৪৫ দিন। এছাড়া খরচও বেশি হতো। 

বন্দর সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ২৩ ডিসেম্বর পরীক্ষামূলক যাত্রায় ইতালি থেকে খালি কনটেইনার নিয়ে ক্যাপ ফ্লোরেস নামের একটি জাহাজ চট্টগ্রাম বন্দরে আসে। ইতালির ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার প্রতিষ্ঠান আরআইএফ লাইন এবং সহযোগী প্রতিষ্ঠান ক্যালিপসো কোম্পানিয়া ডি নেভিগেশন চট্টগ্রাম-ইতালি সরাসরি জাহাজ চলাচলের এ সেবা চালু করেছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর

English HighlightsREAD MORE »