সিনহা হত্যা: ১৫ আসামির উপস্থিতিতে পড়া হলো ৩০০ পৃষ্ঠা রায়

ঢাকা, শনিবার   ০১ অক্টোবর ২০২২,   ১৫ আশ্বিন ১৪২৯,   ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Beximco LPG Gas

সিনহা হত্যা: ১৫ আসামির উপস্থিতিতে পড়া হলো ৩০০ পৃষ্ঠা রায়

কক্সবাজার প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:২৭ ৩১ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৬:১৫ ৩১ জানুয়ারি ২০২২

কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে আদালতে হাজির করা হয় ওসি প্রদীপসহ সিনহা হত্যা মামলার ১৫ আসামিকে

কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে আদালতে হাজির করা হয় ওসি প্রদীপসহ সিনহা হত্যা মামলার ১৫ আসামিকে

কিছুক্ষণ পরই ঘোষণা করা হবে চাঞ্চল্যকর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলার রায়। এরইমধ্যে ৩০০ পৃষ্ঠার রায় পড়া শুরু হয়েছে। কাঠগড়ায় তোলা হয়েছে ওসি প্রদীপ ও ইন্সপেক্টর লিয়াকতসহ ১৫ আসামিকে।

এর আগে, সোমবার দুপুর ২টার দিকে আসামিদের কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে প্রিজন ভ্যানে করে আদালতে আনা হয়। ২টা ২৫ মিনিটে রায় পড়া শুরু করেন বিচারক।

এদিকে, রায় ঘোষণা উপলক্ষে কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালত প্রাঙ্গণে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) রফিকুল ইসলাম  বলেন, সকাল থেকে পুরুষ সদস্যদের পাশাপাশি আমাদের নারী পুলিশ সদস্যরাও নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করছেন। মেজর সিনহা হত্যা মামলার রায়কে কেন্দ্র করে যেকোনো পরিস্থিতি এড়াতে আমরা প্রস্তুত আছি।

২০২০ সালের ৩১ জুলাই রাত সাড়ে ৯টার দিকে শামলাপুর বাজারের কাছে এপিবিএন পুলিশ চেকপোস্টে বাহারছড়া পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের পরিদর্শক লিয়াকতের গুলিতে নিহত হন অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। ঐ ঘটনায় ৫ আগস্ট মামলা করেন মেজর সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌস। ৬ আগস্ট সকালে মামলাটি টেকনাফ থানায় নথিভুক্ত করে তদন্তের জন্য র‍্যাবকে হস্তান্তর করা হয়। ১৩ ডিসেম্বর র‍্যাব-১৩ কক্সবাজার ব্যাটালিয়নের সিনিয়র এএসপি খাইরুল ইসলাম ১৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

২০২১ সালের ২৭ জুন আদালত ১৫ আসামির বিরুদ্ধে বিচারকাজ শুরুর আদেশ দেয়। চলতি বছরের ১২ জানুয়ারি যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের শেষদিনে ৩১ জানুয়ারি মামলার রায় ঘোষণার দিন ধার্য করে আদালত। এরই ধারাবাহিকতায় আজ সোমবার চাঞ্চল্যকর এ মামলার রায় ঘোষণা করবেন কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ ইসমাইল। এ উপলক্ষে আদালত চত্বরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) রফিকুল ইসলাম  বলেন, সকাল থেকে পুরুষ সদস্যদের পাশাপাশি আমাদের নারী পুলিশ সদস্যরাও নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করছেন। মেজর সিনহা হত্যা মামলার রায়কে কেন্দ্র করে যেকোনো পরিস্থিতি এড়াতে আমরা প্রস্তুত আছি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর

English HighlightsREAD MORE »