অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখরিত দগরিয়া বিল

ঢাকা, শনিবার   ২১ মে ২০২২,   ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯,   ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখরিত দগরিয়া বিল

শরীফ ইকবাল রাসেল, নরসিংদী ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৫৯ ৪ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৬:৫০ ৪ জানুয়ারি ২০২২

হাজারো অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখরিত নরসিংদীর দগরিয়া বিল। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

হাজারো অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখরিত নরসিংদীর দগরিয়া বিল। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

হাজারো অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখরিত নরসিংদীর দগরিয়া বিল। আর এই মনোমুগ্ধকর দৃশ্য দেখতে দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসছেন পাখি প্রেমিরা। স্থানীয় কিছু অসাধু ব্যক্তি পাখি শিকার করছেন অবাধে। তাই পাখিদের জন্য অভয়াশ্রম গড়ে তোলার দাবি সচেতন মহলের।

মনের আনন্দে উড়ছে হাজার হাজার অতিথি পাখি। কখনো আকাশে কিচির মিচির শব্দ, আবার কখনো বা পানিতে লুকোচুরি। এ যেন পাখিদেরই রাজ্য। নিজ আনন্দে তারা গান গেয়ে উড়ে বেড়াচ্ছে এক বিল থেকে অন্য বিলে। এমন আচরণে মনে হচ্ছে যেনো কোনো উৎসবে মেতেছে তারা।

হিমালয়ের উত্তরের সুদূর সাইবেরিয়া, চীন, মঙ্গোলিয়া, নেপাল প্রভৃতি শীত প্রধান দেশ থেকে প্রচণ্ড তুষারপাতের সঙ্গে নিজেদের মানিয়ে নিতে না পেরে নাতিশীতোষ্ণ অঞ্চল হিসেবে বাংলাদেশে শীতের শুরুতেই আসতে শুরু করে এসব অতিথি পাখি।

আরো পড়ুন >>> শ্বশুরবাড়ি গিয়ে স্ত্রীকে কুপিয়ে মারল স্বামী

অতিথি পাখিদের অধিকাংশই হাঁস জাতীয়। পাতি, সরালি, পান্তামুখী, পাতারি, পচার্ড, ছোট জিরিয়া, মুরগ্যাধি, গার্গেনি, কোম্বডাক, পাতারী হাঁস, জলকুক্কুট, খয়রা, ফ্লাইফেচার ও কামপাখি জাতীয় পাখিই বেশি। হাজার হাজার পাখি দীর্ঘ হাজার পথ পাড়ি দিয়ে এদেশে আসে। 

হাজারো অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখরিত নরসিংদীর দগরিয়া বিল।

স্থানীয় আব্দুর করিম মিয়া জানান, গত কয়েক বছর ধরে শীতের শুরুতে দলবেঁধে নরসিংদীর দগরিয়া বিলে আসছে এসব অতিথি পাখি। তবে অন্যান্য বছরের চেয়ে এবার পাখিদের উপস্থিতি কিছুটা বেশি। আর পাখিদের এই মনোমুগ্ধকর দৃশ্য দেখতে দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসছেন পাখিপ্রেমীরা। এই সুযোগে স্থানীয় কিছু অসাধু ব্যক্তি পাখিগুলোকে নির্বিচারে শিকার করে বাজারে বিক্রি করছেন। শিকারীদের হাত থেকে পাখিদের রক্ষায় দগরিয়ার এ বিলকে অভয়আশ্রম হিসেবে গড়ে তোলার দাবি এলাকাবাসীর। 

আরো পড়ুন >>> কক্সবাজারে পর্যটক ধর্ষণ মামলায় আশিক ৩ দিনের রিমান্ডে

স্থানীয় আব্দুল কাদির মোল্লা সিটি কলেজের শিক্ষক পপেল চন্দ্র সাহা বলেন, কলেজে থেকেই পাখির কিচির মিচর শব্দ শোনা যায়। পাখির ডাকগুলো খুবই ভালো লাগে। তাই কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা এই পাখির দৃশ্য দেশে আনন্দ উপভোগ করে। এই পাখি শিকার বন্ধে স্থানীয় প্রশাসনের নজর দেয়া উচিত বলে মনে করেন তিনি।

হাজারো অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখরিত নরসিংদীর দগরিয়া বিল।

পাখি প্রকৃতির বড় একটি অনুসঙ্গ, এটি ভালো লাগার একটি অংশ। শীতের এই সময়ে সূদুর সাইবেরিয়া থেকে অনেক অতিথি পাখি আসে। প্রকৃতির সৌন্দর্য অনেক গুণ বাড়িয়ে দেয়। তাই তাদের শিকার না করে অভয়াশ্রম গড়ে তোলা উচিত বলে মন্তব্য করেন একই কলেজের বাংলা বিভিাগের সহকারী অধ্যপক মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান।
 
নরসিংদী পরিবেশ আন্দোলন (আপন) নামে সংগঠনের সভাপতি মাইনুল রহমান মীরু অতিথিপাখিগুলোকে তীর্থযাত্রী হিসেবে আখ্যা দিয়ে বলেন, যারা আমাদের আনন্দ দেয় ও পরিবেশকে সমন্বিত রুপ দেয় তাদের এভাবে শিকার করা দু:খজনক। তাই শিকার রোধে স্থানীয় প্রশাসনের এ বিষয়ে সজাগ দৃষ্টি দেয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন।

আরো পড়ুন >>> স্ত্রীকে দিয়ে প্রেম, টর্চার সেলে এনেই পরপুরুষের সঙ্গে তুলতেন অশ্লীল ছবি
 
নরসিংদী সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর গোলাম মোস্তাফা মিয়া জানান, শীতের শুরুতেই দূর দেশ থেকে প্রচুর পাখি আসে এবং আমাদের বিল ও হাওড়ে অবস্থান নেয়। কিন্তু মানুষ নামের কিছু অসাধু ব্যক্তি সেই পাখিগুলোকে শিকার করে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট করছে। এ বিষয়ে স্থানীয় প্রশাসনসহ সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান জানান এই শিক্ষাবিধ।
  
স্থানীয় প্রশাসন ও জনগণের সহায়তায় অতিথি পাখি শিকার রোধ করে তাদের জন্য অভয়াশ্রম গড়ে তুলে পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখবে এমন প্রত্যশা সচেতন মহলের। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে

English HighlightsREAD MORE »