বগুড়ায় সড়কে ঝরল নারীসহ তিনজনের প্রাণ

ঢাকা, সোমবার   ২৭ জুন ২০২২,   ১৩ আষাঢ় ১৪২৯,   ২৮ জ্বিলকদ ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

বগুড়ায় সড়কে ঝরল নারীসহ তিনজনের প্রাণ

বগুড়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:০৪ ২ জানুয়ারি ২০২২  

আদমদীঘি উপজেলায় দুর্ঘটনাকবলিত কাভার্ডভ্যান (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

আদমদীঘি উপজেলায় দুর্ঘটনাকবলিত কাভার্ডভ্যান (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

বগুড়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় তিন উপজেলায় নারীসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। সদর উপজেলায় বাসের ধাক্কায় এক নারী পথচারী, কাহালু উপজেলায় পিকআপের ধাক্কায় এক ভ্যানযাত্রী ও আদমদীঘি উপজেলায় কাভার্ডভ্যানের চাকায় পিষ্ট হয়ে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে।

রোববার দুপুরে সদর উপজেলার বগুড়া-রংপুর মহাসড়কের বাঘোপাড়া এলাকায় রংপুর থেকে ঢাকাগামী বাসের ধাক্কায় আমেনা বেওয়া নামে এক পথচারী নিহত হন। ৫৫ বছর বয়সী আমেনা বাঘোপাড়া এলাকার বাসিন্দা। তার স্বামীর নাম মৃত শাহজাহান আলী।

এ তথ্য নিশ্চিত করে বগুড়া সদর থানার এসআই বেদার উদ্দিন জানান, আমেনা হেঁটে রাস্তা পার হচ্ছিলেন। ঐ সময় ঢাকাগামী একটি বাস তাকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই আমেনার মৃত্যু হয়। বাসটি আটক করা হয়েছে। তবে বাসের চালক-হেলপার পলাতক আছেন। বিষয়টি হাইওয়ে পুলিশ দেখছে।

বগুড়া হাইওয়ের সার্কেল এএসপি হরেশ্বর রায় বলেন, লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। নিহতের পরিবার এজাহার জমা দেওয়ার পর গোবিন্দগঞ্জ হাইওয়ে থানায় মামলাটি হবে।

এর আগে, কাহালু উপজেলায় দাঁড়িয়ে থাকা অটোভ্যানে দ্রুতগতির পিকআপের ধাক্কায় আব্দুর রাজ্জাক নামে ৪০ বছর বয়সী একজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও চারজন। এ ঘটনায় পিকআপ চালক ২০ বছর বয়সী সানোয়ার হোসেন লাবিবকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

রোববার দুপুরে সড়ক পরিবহন আইনে পিকআপ চালক লাবিবকে আদালতে মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে শনিবার রাত ৮টার দিকে কাহালু উপজেলার বগুড়া-নওগাঁ আঞ্চলিক মহাসড়কের বীরকেদার এলাকায় ঐ দুর্ঘটনা ঘটে। গ্রেফতার লাবিব গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা। তার বাবার নাম শাহাদত হোসেন।

আরো পড়ুন: নিখোঁজের ৯ দিনেও সন্ধান মেলেনি নানি-নাতির

নিহত আব্দুর রাজ্জাক বীরকেদার এলাকার একটি গ্লাস কারখানার শ্রমিক ছিলেন। বগুড়া দুপচাঁচিয়া উপজেলার মোস্তফাপুর গ্রামের বাসিন্দা। তার বাবার নাম মৃত আলতাব আলী। আহতদের মধ্যে দুজন বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বাকি দুজন স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন কাহালু থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হারুন অর রশিদ।

হারুন অর রশিদ জানান, আব্দুর রাজ্জাকসহ আরও চারজন একটি অটোভ্যানে যাত্রী হিসেবে উঠেন। তাদের ভ্যানটি দাঁড়ানো অবস্থায় ছিল। ওই সময় বগুড়া থেকে দুপচাঁচিয়াগামী দ্রুতগতির একটি পিকআপ ভ্যানটিকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। ফলে ভ্যানের সব যাত্রীই মহাসড়কে ছিটকে পড়েন। কিন্তু আব্দুর রাজ্জাককে পিকআপ চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এর কিছুক্ষণ পরে স্থানীয়রা উত্তেজিত হয়ে ঐ পিকআপে আগুন দেয়। পরে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে নেন। 

তিনি আরও জানান, মৃত আব্দুর রাজ্জাকের ভাই মহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় সড়ক পরিবহন আইনে মামলা করেন। ঐ মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে পিকআপ চালক লাবিবকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে কাহালু উপজেলায় কাভার্ডভ্যানের চাকায় পিষ্ট হয়ে ৪২ বছর বয়সী নিতিশ চন্দ্র নামে আওয়ামী লীগের এক সমর্থক নিহত হয়েছেন। রোববার দুপুরে উপজেলার ঝাঁকইর তিনমাথা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত নিতিশ চন্দ্র উপজেলার চাঁপাপুর ইউনিয়নের কামারপুর গ্রামের জ্যোতিষ চন্দ্রের ছেলে।

জানা গেছে, রোববার দুপুরে উপজেলার চাঁপাপুর ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী অ্যাডভোকেড শামছুল হক দেড় শতাধিক মোটরসাইকেল নিয়ে শোডাউন দিচ্ছিলেন। এ সময় একটি মোটরসাইকেলে বসে শোডাউনের দৃশ্য ভিডিও করছিলেন নিতিশ। পথে ঝাঁকইর এলাকায় চালক ঐ মোটরসাইকেলটির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললে কাভার্ডভ্যানের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এ সময় নিতিশ রাস্তায় পড়ে যান এবং কাভার্ডভ্যানের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

এ তথ্য নিশ্চিত করে আদমদীঘি থানার এসআই প্রদীপ কুমার জানান, কাভার্ডভ্যান আটক করা হয়েছে। চালক-হেলপার পলাতক আছেন। মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম

English HighlightsREAD MORE »