দাঁত দিয়ে যদি হয় দারুন কিছু

ঢাকা, সোমবার   ০৩ অক্টোবর ২০২২,   ১৯ আশ্বিন ১৪২৯,   ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Beximco LPG Gas

দাঁত দিয়ে যদি হয় দারুন কিছু

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৪৭ ৭ ডিসেম্বর ২০২১  

দাঁত দিয়ে তৈরি গয়না। ছবি : সংগৃহীত

দাঁত দিয়ে তৈরি গয়না। ছবি : সংগৃহীত

কথায় বলে দাঁত থাকতে কেউ দাঁতের মর্যাদা বোঝে না। এই দাঁত কেবল আজকে নয়, আজ থেকে ৮৫০০ বছর আগেও মানুষের কাছে অমূল্য ছিল। তাই অলঙ্কার হিসেবে মানুষের দাঁতকে ব্যবহার করা হত। তুরস্কে নিওলিথিক যুগের খননকার্য নিয়ে গবেষণায় ইতিহাসবিদরা জানিয়েছেন এমন চমকপ্রদ তথ্য।

জানা যায়, সে সময়ে দাঁতকে ফুটো করে তা গলায় নেকলেস বা হাতে ব্রেসলেট বানিয়ে পড়া হত। মৃত্যুর পর পরিণত মানুষদের দাঁত দিয়ে বানানো হত পেনডেন্ট। অনুমান করা হয়, খুঁজে পাওয়া এই পেন্ডেন্টির দাঁত কোনো ৩০-৫০ বছর বয়সি মানুষের হবে।

মানুষের দাঁত দিয়ে তৈরি প্রাচীনকালের গয়না। ছবি : সংগৃহীত

গবেষকদের অনুমান, মৃত মানুষের দাঁত বা হাড় থেকে এধরণের গয়না তৈরি করা হত। যদিও অনেকের ধারণা, এর পিছনে অন্য কোনো ধার্মিক কারণও থাকতে পারে। তবে দাঁতের মর্যাদা সেই যুগে মৃত্যুর পরেও যে কতখানি ছিল, তা জানতে হয়ত আগামী দিনে আরও বিস্তারিত গবেষণার হবে।

তবে শুধুই প্রাচীন যুগেই নয়, সম্প্রতি মৃত মানুষের দাঁত থেকে গলার হার এবং আংটি তৈরি করে তিনি রীতিমত সাড়া ফেলে দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার এক জুয়েলার। ওই নারী জুয়েলারের নাম জ্যাকি। কয়েক বছর আগে যখন জ্যাকি তার প্রিয় বন্ধুকে হারিয়েছিলেন তখন থেকেই ঠিক করেন, প্রিয়জনকে হারানোর দুঃখ মোকাবেলা করতে তিনি মানুষকে সাহায্য করবেন, তখন থেকেই এই জুয়েলারি বানানোর আগ্রহ তাঁর মধ্যে জন্মায়।

গণমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জ্যাকি জানান,দাত দিয়ে গহনা তৈরি শুরুর পর তাঁর কাছে বিভিন্ন সময়ে বেশ কিছু অদ্ভুত অনুরোধও এসেছে। যেমন একজন তাকে আইইউডি ব্যবহার একটি গয়না তৈরি করে দিতে বলেছেন। তবে সেটি প্লাস্টিকের হওয়ায় তিনি তা তৈরি করে দিতে পারেননি। আরেকজন ক্লায়েন্ট তাকে একটি বুলেট দিয়ে গয়না বানাতে বলেছিলেন। সেই বুলেটটি ব্যবহার করে ওই ক্লায়েন্টের ঠাকুরদা আত্মঘাতী হয়েছিলেন।

অস্ট্রেলিয়ান জুয়েলার জ্যাকি। ছবি : সংগৃহীত

জ্যাকি জানান, তার তৈরি করা সবচেয়ে মূল্যবান গয়নাটি ছিল একটি বিয়ের আংটি। ১৮ ক্যারেট রোজ গোল্ড ওয়েডিং রিংটি তিনি বানিয়েছিলেন বরের দাঁত দিয়ে। সেটি পোখরাজ এবং গার্নেট দিয়ে ডিজাইন করা ছিল।  দাম ছিল চার লাখ ১৮ হাজার টাকা। গয়না বানাতে গিয়ে নেটিজেনদের কাছ থেকে মিশ্র প্রতিক্রিয়া পেয়েছেন জ্যাকি।  কেউ কেউ তার কাজকে পছন্দ করেছেন, আবার দাঁত এবং হাড়ের কাজ দেখে বিরক্ত হয়েছেন।

তবে বেশিরভাগ গ্রাহকরা জানিয়েছেন তাঁরা এই গয়নাগুলি রোজ পরেন। জ্যাকি জানান চিরাচরিত ধ্যান ধারণা বদলে তিনি এমন কিছু নিষিদ্ধ জিনিস দিয়ে গয়না বানান যা আমাদের হারিয়ে যাওয়া মানুষগুলির সঙ্গে সংযোগ স্থাপনের একটা মাধ্যম তৈরি করে দেয়। আর সেই স্মৃতি আঁকড়েই বেঁচে থাকেন অনেকে।

ডেইলি বাংলাদেশ/কেবি

English HighlightsREAD MORE »