পায়ে পেরেক ও আঙুলে সুচ ঢুকিয়ে যুবককে নির্যাতন

ঢাকা, রোববার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ৪ ১৪২৮,   ১০ সফর ১৪৪৩

পায়ে পেরেক ও আঙুলে সুচ ঢুকিয়ে যুবককে নির্যাতন

বগুড়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০০:৩৮ ১৮ জুন ২০২১  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বগুড়ার কাহালু উপজেলায় চোর সন্দেহে ঘুম থেকে তুলে আতাউর রহমান শিরু নামে এক যুবককে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ ওই যুবককে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এর আগে বুধবার গভীর রাতে শিরুকে বাড়ি থেকে তুলে নেয়া হয়। শিরু উপজেলার অঘোর মালঞ্চা গ্রামের বাসিন্দা। তার বাবার নাম মজনু সোনার। একই গ্রামের সেলিনা আক্তারসহ অন্যরা তাকে নির্যাতন করেন।

লিখিত অভিযোগ ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বুধবার গভীর রাতে শিরুকে ঘুম থেকে ডেকে তুলেন একই গ্রামের সেলিনা, আছিয়া, সুমনসহ তার পরিবারের পাঁচ থেকে ছয়জন নারী-পুরুষ। পরে তাকে সেলিনাদের বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাকে গ্যাস সিলিন্ডার চুরির অভিযোগে প্রথমে হাত-পা বেঁধে মারধর করা হয়। পরে শিরুর আঙুলে সুঁচ ফোটানো হয় ও বাম পায়ে হাতুড়ি দিয়ে লোহার পেরেক ঢুকিয়ে দেয়া হয়। এছাড়াও তাকে হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করা হয়।

এ বিষয়ে আহত যুবকের বাবা বলেন, রাত ৩টার দিকে একই গ্রামের সেলিনাসহ তার পরিবারের লোকজন আমাদের বাড়িতে আসেন। তারা আমার ছেলেকে ঘুম থেকে ডেকে দিতে বলেন। তাদের কথামতো ছেলেকে ডাক দেই। এরপরই তারা ছেলেকে গ্যাস সিলিন্ডার চুরির বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে থকেন। আমার ছেলে শিরু চুরি করেনি। একথা বাববার বলার পরেও তারা মানতে চাচ্ছিল না। একপর্যায়ে শিরুকে মারধর করতে করতে তুলে নিয়ে যায় তারা। পরে গ্রাম পুলিশসহ স্থানীয়দের সহযোগিতায় সকালে শিরুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করায়। 

অভিযুক্তদের বাড়ি থেকে বুধবার রাতেই গ্যাস সিলিন্ডার চুরি হয়। এরপর তারা শিরুকে ঘুম থেকে ডেকে তুলে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন করেন।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অভিযুক্ত সেলিনা আক্তারসহ অন্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

জানতে চাইলে কাহালু থানার ওসি  মো. আমবার হোসেন বলেন, চোর সন্দেহে শিরুকে মারধর করা হয়েছে। তার শরীরে গুরুতর জখমের চিহ্ন রয়েছে। তাকে কীভাবে নির্যাতন করা হয়েছে এখনো বিস্তারিত জানতে পারিনি। তবে শিরুর পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ পাওয়া গেছে। লিখিত অভিযোগ করেছেন শিরুর বাবা মজনু সোনার।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম