চেয়ারম্যানের সঙ্গে দূরত্ব, ব্যবসায়ীকে বর্বর নির্যাতন

ঢাকা, রোববার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ৪ ১৪২৮,   ১০ সফর ১৪৪৩

চেয়ারম্যানের সঙ্গে দূরত্ব, ব্যবসায়ীকে বর্বর নির্যাতন

পিরোজপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:৪৭ ২৯ মার্চ ২০২১  

নির্যাতনের শিকার ব্যবসায়ী আল আমীন

নির্যাতনের শিকার ব্যবসায়ী আল আমীন

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে চৌকিদারের সামনে আল আমীন নামে এক কাঠ ব্যবসায়ীকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়েছে। এরপর নারী নির্যাতন মামলায় ঠুঁকে দেয়া হয়।

রোববার রাতে উপজেলার পত্তাশী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। শত্রুতার জেরে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এ নির্যাতন চালিয়েছেন বলে অভিযোগ আহত ব্যবসায়ীর।

নির্যাতনের শিকার ব্যবসায়ীর নাম আল আমীন। তিনি পত্তাশী গ্রামের মো. আলী আকবারের ছেলে। বর্তমানে পুলিশি পাহারায় হাতকড়া পরা অবস্থায় সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।

চিকিৎসাধীন আল আমীন জানান, রোববার রাতে একটি মাদরাসায় মাহফিল শুনে স্থানীয় এক যুবকের সঙ্গে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। এ সময় পত্তাশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন হাওলাদারের সমর্থিত ১০-১২ জন তার ওপর হামলা চালান। এরপর তাদের সঙ্গে যোগ দেন আরো ১৫-২০ জন। একপর্যায়ে তাকে মাটিতে ফেলে হাত-পা বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করেন তারা। ঘটনাস্থলে চৌকিদার মো. রিয়াজ থাকলেও নীরব ভূমিকা পালন করেন।

অভিযোগ করে আল আমীন বলেন, আমি আগে চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেমের সমর্থক ছিলাম। বর্তমানে তার সঙ্গে দূরত্ব রয়েছে। এজন্যই ক্ষিপ্ত হয়ে আমার ওপর এমন বর্বর নির্যাতন চালিয়েছেন চেয়ারম্যান।

এদিকে ঘটনাস্থল থেকে গুরুতর অবস্থায় আল আমীনকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। এরপর তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে পুলিশি পাহারায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি। এছাড়া সোমবার আল আমীনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করা হয়।

এ ব্যাপারে চৌকিদার রিয়াজ বলেন, আমি ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলাম। আল আমীনকে তেমন মারধর করা হয়নি। সামান্য মারধর করে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম বলেন, আল আমীনকে মারধরের খবর পেয়ে চৌকিদার রিয়াজকে ঘটনাস্থলে পাঠিয়েছিলাম উদ্ধার করতে। এরপর বিষয়টি তাৎক্ষণিক থানায় জানানো হয়।

ইন্দুরকানী থানার ওসি মো. হুমায়ুন কবির জানান, একটি মেয়েকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ স্থানীয়রা আল আমীনকে ধরে ব্যাপক মারধর করেছে। এ ঘটনায় ইন্দুরকানী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর