পদ্মাসেতুতে বসল ৩৬তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৫ হাজার ৪০০ মিটার

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৫ জুন ২০২১,   আষাঢ় ১ ১৪২৮,   ০৩ জ্বিলকদ ১৪৪২

পদ্মাসেতুতে বসল ৩৬তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৫ হাজার ৪০০ মিটার

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১০:০০ ৬ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ১২:৪০ ৬ নভেম্বর ২০২০

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

পদ্মাসেতুতে বসানো হয়েছে ৩৬তম স্প্যান। আর এর মধ্য দিয়েই দৃশ্যমান হলো ৫ হাজার ৪০০ মিটার অর্থাৎ প্রায় সাড়ে ৫ কিলোমিটার সেতু। শুক্রবার সকাল ৯টা ৪২ মিনিটে মাওয়া প্রান্তের ২ ও ৩ নম্বর খুঁটির ওপর ১-বি নামের ৩৬তম স্প্যানটি স্থাপনের কাজ শেষ হয়।

পদ্মাসেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়ান আব্দুল কাদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ‘তিয়ান ই’ নামের ভাসমান ক্রেনে ১-বি নামের ধুসর রঙের স্প্যানটি খুঁটির কাছে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপরই শুরু হয় খুঁটির ওপর স্প্যান বসানোর কাজ।

এর আগে ১১ অক্টোবর ৩২তম স্প্যান, ১৯ তারিখ ৩৩তম স্প্যান, ২৫ তারিখ ৩৪তম স্প্যান ও ৩১ তারিখ ৩৫তম স্প্যান বসানো হয়। নভেম্বর মাসেও চারটি স্প্যান বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়ান আব্দুল কাদের।

২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মাসেতুর নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারে প্রথম স্প্যানটি বসানোর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হয় পদ্মা সেতু। এরপর একে একে বসানো হলো ৩৫টি স্প্যান। প্রতিটি স্পেনের দৈর্ঘ্য ১৫০ মিটার। ৪২টি পিলারের ওপর ৪১টি স্প্যান বসিয়ে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মাসেতু নির্মাণ করা হবে।

মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড (এমবিইসি) ও নদীশাসনের কাজ করছে দেশটির আরেকটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন।

দুটি সংযোগ সড়ক ও অবকাঠামো নির্মাণ করেছে বাংলাদেশের আব্দুল মোমেন গ্রুপ লিমিটেড। বহুমুখী এই সেতুর মূল আকৃতি হবে দ্বিতল, যা কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ