কেজি দরে বিক্রি হবে শাহজালালে পড়ে থাকা ১২ উড়োজাহাজ

ঢাকা, শনিবার   ৩১ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ১৭ ১৪২৮,   ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

কেজি দরে বিক্রি হবে শাহজালালে পড়ে থাকা ১২ উড়োজাহাজ

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:০৩ ২৭ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ২১:২৫ ৩০ আগস্ট ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ঢাকার শাহজালালে পরিত্যক্ত ১২টি উড়োজাহাজ  নিলামে বা কেজি দরে বিক্রির পরিকল্পনা করছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনাল নির্মাণ কাজে বাধা সৃষ্টি হওয়া এই উড়োজাহাজগুলো বিক্রি করা হবে।

পরিত্যক্ত উড়োজাহাজগুলোর মধ্যে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের আটটি, জিএমজির একটি, রিজেন্ট এয়ারওয়েজের দুটি এবং অ্যাভিয়েনা এয়ারলাইন্সের একটি রয়েছে। 

গত বৃহস্পতিবার বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) এ তথ্য জানায়। 

দীর্ঘদিন ধরে বিমানবন্দর কার্গো ভিলেজ অ্যাপ্রোনের বিশাল অংশ দখল করে রাখা উড়োজাহাজগুলো সরানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। 

কর্মকর্তারা জানান, এসব এয়ারলাইন্সের কাছে কয়েকশ’ কোটি পাওনা রয়েছে বেবিচকের। কোনো ধরনের চার্জ পরিশোধ না করেই উড়োজাহাজগুলো বছরব্যাপী বিমানবন্দর রানওয়ে এলাকায় ফেলে রাখা হয়। বর্তমান ঢাকার বিমানবন্দরে চলছে বিশ্বমানের তৃতীয় টার্মিনাল নির্মাণের কাজ। ফলে পরিত্যক্ত উড়োজাহাজগুলোর কারণে নির্মাণ কাজে বাধার সৃষ্টি হয় বলে সংশ্নিষ্টরা জানান।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন এইচএম তৌহিদুল আহসান বলেন, বিমানবন্দরে তৃতীয় টার্মিনাল নির্মাণ কাজের জন্য এর বিভিন্ন জায়গায় পরিবর্তন আনা হচ্ছে। বিমানবন্দরের কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে উত্তর দিকে নতুন করে ট্যাক্সিওয়ে নির্মাণ করা হয়। বিমানবন্দরের মূল পার্কিং জোনে আমদানি-রফতানির মালপত্র উড়োজাহাজে ওঠানো-নামানো হয়। এতে যাত্রীবাহী উড়োজাহাজগুলোকে পার্কিংয়ের জায়গা দিতে সংকটে পড়তে হয়। 

তিনি বলেন, বিমানবন্দরের উত্তর দিকে রফতানি কার্গো ভিলেজের সামনে পরিত্যক্ত উড়োজাহাজগুলো সরাতে পারলে কমপক্ষে ছয়টি কার্গো উড়োজাহাজকে পার্কিংয়ের জায়গা দেয়া সম্ভব হবে। তবে বছরের পর বছর বেবিচক চিঠি দিলেও পরিত্যক্ত উড়োজাহাজগুলো সরাতে কোনো উদ্যোগ নেননি সংশ্নিষ্ট এয়ারলাইন্স মালিকরা। ফলে এসব উড়োজাহাজের রেজিস্ট্রেশন কার্যকর থাকায় আইনগত পদক্ষেপ নিয়ে নিলামে অথবা কেজি দরে বিক্রির পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএইচ/এসআই