মাত্র ১৬৭ টাকা সেভিংস করে আপনিও হতে পারেন কোটিপতি

ঢাকা, শনিবার   ২৮ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১৪ ১৪২৭,   ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

মাত্র ১৬৭ টাকা সেভিংস করে আপনিও হতে পারেন কোটিপতি

লাইফস্টাইল ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:০৯ ২৫ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৪:১৭ ২৫ আগস্ট ২০২০

১৬৭ টাকা সেভিংস করেই হবেন কোটিপতি

১৬৭ টাকা সেভিংস করেই হবেন কোটিপতি

প্রত্যেকটি মানুষের মনেই ইচ্ছা জাগে কোটিপতি হওয়ার। আর এই ইচ্ছা পূরণের লক্ষ্যে অনেকেই অকালন্ত পরিশ্রমও করেন। তবে তা সব সময় কার্যকর হয় না। বিশেষ করে চাকুরীজীবীদের ক্ষেত্রে। তাদের বেশিরভাগ অংশের কাছে কোটিপতি হওয়াটা একটা স্বপ্ন, যা কখনো পূরণ করা সম্ভব নয়।

তবে এই অসম্ভব ব্যাপারটি এখন একদম সম্ভব। বর্তমানে এমন অনেক ইনভেস্টমেন্ট প্ল্যান আছে, যার দ্বারা আপনি সহজেই আপনার স্বপ্ন পূরণ করতে পারেন।

আরো পড়ুন: কালো ঠোঁট গোলাপি করবে ধনেপাতা, জানুন পদ্ধতি

সাধারণত আমরা মনে করি, যে কম টাকা ইনভেস্টমেন্ট করলে বেশি টাকা ফেরত পাওয়া যায় না। কিন্তু এটা সঠিক নয়, কারণ এখন ১৬৭ টাকা প্রতিদিন সেভ করলে সহজেই কোটিপতি হতে পারেন আপনিও। আর সেটা সম্ভব মিউচুয়াল ফান্ডের এসাইপি প্ল্যান এর মাধ্যমে। চলুন জেনে নেয়া যাক সেই পদ্ধতিটি-  

এই এসাইপি প্ল্যান এ লম্বা বা দীর্ঘ সময়ের জন্য ইনভেস্ট করলে কমপাউনডিং এর সুবিধা পাওয়া যায়। অর্থাৎ যদি আপনি ১৫ থেকে ২০ বছর সময়ের জন্য ইনভেস্ট করেন, তাহলে প্ল্যান এর শেষের দিকে এই কমপাউনডিং এর জন্য আপনার রিটার্ন অ্যামাউন্ট বেড়ে যায়।

যদিও এই এসাইপি প্ল্যানে আপনাকে কখনোই নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বাধ্যতামূলক ভাবে ইনভেস্ট করে যেতে হয় না। আপনি আপনার ইচ্ছা মতো ইনভেস্টমেন্ট বন্ধ করতেই পারেন। কিন্তু আপনি যদি প্রতিদিন ১৬৭ টাকা সেভ করেন, তাহলে মাসে মোট ৫০০০ টাকা হয়। এই টাকা আপনি এসাইপি তে ইনভেস্ট করলে আপনার পোর্টফোলিও যদি আপনাকে বছরে ১২ শতাংশ রিটার্ন দেয়, তবে ২৮ বছরের মধ্যে আপনি ১.৪ কোটি টাকা আয় করতে পারবেন। ৩০ বছরে সেটা দাঁড়াবে ১.৮ কোটি টাকা। ৩৫ বছরে আপনার রিটার্নের পরিমাণ হবে ৩.২৪ কোটি টাকা। অর্থাৎ বুঝতেই পারছেন যে এই বিষয়টি খুব কঠিন নয়।

আরো পড়ুন: নদীর ইলিশ চিনবেন যে উপায়ে

তবে নিয়মিত অর্থাৎ প্রতি ৬ মাস বা ১ বছর অন্তর আপনার ইনভেস্টমেন্ট এর উপর নজর রাখবেন, যদি ভালো রিটার্ন দেয়, তবেই আপনার ইনভেস্টমেন্ট চালু রাখুন। আর ভালো রিটার্ন না পেলে অন্য জায়গায় ইনভেস্টমেন্ট করুন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এএ