রিলিফ আত্মসাৎকারীদের বিরুদ্ধে মির্জা আজমের কড়া হুঁশিয়ারি 

ঢাকা, মঙ্গলবার   ০১ ডিসেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১৭ ১৪২৭,   ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২

রিলিফ আত্মসাৎকারীদের বিরুদ্ধে মির্জা আজমের কড়া হুঁশিয়ারি 

জামালপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:৫০ ২৯ জুলাই ২০২০  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

রিলিফ আত্মসাৎকারীদের বিরুদ্ধে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি।

বুধবার দুপুরে জামালপুরের মাদারগঞ্জে স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও টাকা বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ হুঁশিয়ারি দেন।

তিনি বলেন, জিহ্বা সামলান, তা না হলে পরিণাম খুব খারাপ হবে। প্রচুর পরিমাণ ত্রাণ বিতরণ করা হচ্ছে। কেউ না খেয়ে থাকবে না। যার ঘরে রিলিফের মাল পাওয়া যাবে তাকেই আইনের আওতায় আনা হবে। কেউ রিলিফের চাল কিনবেন না। যারা রিলিফ পায় তারাই রিলিফ বিক্রি করে দেয়, এ  কথা বলে রিলিফকে হালাল করে নেবেন তা চলবে না।

সাবেক বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, প্রাকৃতিক পরিবেশের উপর মানুষের অত্যাচারের কারণে আল্লাহ পৃথিবীতে গজব নাজিল করেছেন। বৈশ্বিক মহামারি করোনার কারণে আল্লাহর ওপর ভরসা করে আকাশের দিকে তাকিয়ে থাকেন বিশ্বের ক্ষমতাধর সরকার প্রধানরা। আমাদের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা আল্লাহর ওপর ভরসা করে করোনা আর বন্যা মোকাবিলায় দুর্গত ও দুঃসময়ে বিপুল সাহায্য নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। প্রতিটি দুর্যোগে শেখ হাসিনা বিপদগ্রস্ত মানুষের পাশেই থাকেন।

মির্জা আজম এমপি মাদারগঞ্জের বালিজুড়ি এফএম উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে করোনায় ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী ও টাকা বিতরণ করেন। এ সময় ওয়ার্ল্ড ভিশন ও উন্নয়ন সংঘের উদ্যোগে ২৬৫টি নির্বাচিত পরিবারের মাঝে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী এবং প্রত্যেককে তিন হাজার করে টাকা বিতরণ করা হয়।

বালিজুড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মো. মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে এ বিতরণী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন মাদারগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ওবায়দুর রহমান বেলাল, ইউএনও আমিনুল ইসলাম, ওয়ার্ল্ড ভিশনের দুর্যোগ ও ত্রাণ বিষয়ক পরিচালক সাগর মারান্ডি, উন্নয়ন সংঘের নির্বাহী পরিচালক মো. রফিকুল আলম মোল্লা, মানবসম্পদ উন্নয়ন পরিচালক জাহাঙ্গীর সেলিম, ওয়ার্ল্ড ভিশনের ভারপ্রাপ্ত আঞ্চলিক পরিচালক জর্জ সরকার, জামালপুর ফ্লাড রেসপন্স প্রকল্পের ব্যবস্থাপক রুহুল আমিন প্রমুখ।

চলমান বন্যা ও কোভিড-১৯ এর প্রভাবে জামালপুর জেলায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা ইসলামপুর উপজেলার চারটি ইউপি এবং মাদারগঞ্জ উপজেলার দুটি ইউপিকে চিহ্নিত করা হয়। ওয়ার্ল্ড ভিশনের সহযোগিতায় উন্নয়ন সংঘ মাঠ পর্যায়ে খানা জরিপের মাধ্যমে এক হাজার ৬০০ বিপদাপন্ন পরিবার নির্বাচন করে।

এর আগে জোড়খালি ইউপিতে ২৬৫টি পরিবারের মাঝে সমপরিমাণ টাকা ও পণ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। প্রতিটি পরিবারে তিন হাজার টাকা প্রদানের পাশাপাশি ৫০টি মাস্ক, ১০টি গায়ে মাখা সাবান, ৫ প্যাকেট গুঁড়া সাবান, ৮টি কাপড় (ঋতুস্রাবকালীন ব্যবহারের জন্য), একটি বড় বালতি, একটি মগ, দুটি লিফলেট বিতরণ করা হয়।

চলমান মৌসুমী বৃষ্টির প্রভাবে বন্যা দুর্গত শিশু ও পরিবারের স্বাস্থ্যগত চাহিদা পূরণ ও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের জীবিকা সহায়তায় দাতা সংস্থা স্টার্ট ফান্ড ও ইউকে এইড ৪৫ দিন মেয়াদি জামালপুর ফ্লাড রেসপন্স প্রকল্পে প্রায় এক কোটি চার লাখ টাকা অনুদান প্রদান করে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ