Alexa ফকিরহাটের স্লুইস গেটটি চাষিদের গলার কাঁটা!

ঢাকা, শুক্রবার   ২৩ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৮ ১৪২৬,   ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

ফকিরহাটের স্লুইস গেটটি চাষিদের গলার কাঁটা!

বাগেরহাট প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ০৭:৪৭ পিএম, ৭ ডিসেম্বর ২০১৮ শুক্রবার | আপডেট: ০৭:৫৭ পিএম, ৭ ডিসেম্বর ২০১৮ শুক্রবার

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার মুলঘর ইউপির গুড়গুড়িয়া গ্রামের ডোঙ্গার খালের স্লুইস গেটটি দীর্ঘ দিন ধরে সংস্কারের অভাবে আজ রুগ্‌ণদশা।

সংস্কারের অভাবে ডোঙ্গার খালের স্লুইস গেটটির ভাঙ্গা অবস্থায় রয়েছে ৫ টি দরজা। ফলে প্রতিনিয়ত ঢুকছে জোয়ারের পানি। প্লাবিত হচ্ছে ফসলের জমি। এ দুরবস্থা গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে সেখানকার ইরি ধানের বীজ বপনকারী চাষিদের জন্য। 

গেটের পাঁচটি দরজা না থাকায় জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হচ্ছে আশপাশের ফসলি জমি। এর ফলে ওই এলাকার চাষিদের ইরি ধানের বীজ বপন করা একেবারেই অসম্ভব হয়ে পড়ছে। মারাত্মক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে সেখানকার কৃষকেরা। ওই এলাকার মানুষ চিংড়ি মাছ চাষের পাশাপাশি ধান চাষের ওপর ব্যাপকভাবে নির্ভরশীল। বর্তমানে বিভিন্ন কারণে চিংড়ি চাষিরা ধ্বংসের পথে। ফলে ধান চাষ এখন সেখানকার মানুষের বেঁচে থাকার অন্যতম অবলম্বন।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, কর্তৃপক্ষের তদারকির অভাবে মরিচা পড়ে নষ্ট হয়ে গেছে স্লুইস গেটের মুখসহ পানি ওঠানামার দরজাগুলো। চলতি মৌসুমে কৃষকের পানির প্রয়োজন না হওয়া সত্বেও এই দরজাগুলো দিয়ে জোয়ারের পানি এসে ফসলি জমি ডুবিয়ে দিয়ে যাচ্ছে। যার ফলে কৃষকেরা ধানের চারা বপন করতে পারছেন না। বন্যা ও জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য নির্মিত এই স্লুইস গেট এখন কৃষকের গলার কাঁটায় পরিণত হয়েছে। এই খালে বছরের অধিকাংশ সময় কচুরিপানা দিয়ে ভরা থাকে। এই কচুরিপানার কারণে এখানে পানি নিষ্কাশনেরও বড় সমস্যা হয় বলে এলাকাবাসী জানিয়েছে।

কথা হয় সেখানকার ৭নং মূলঘর ইউপির চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট হিটলার গোলদারের সঙ্গে। তিনি বলেন, গেটের দরজাগুলো সংস্কার করার দায়িত্ব পানি উন্নয়ন বোর্ডের। বর্তমানে গেটের দরজা না থাকাসহ বিভিন্ন ধরনের সমস্যা কর্তৃপক্ষকে জানালে তারা ঠিক করতে আসবো আসবো বলে, কিন্তু এই গেট মেরামতের কাজে তারা আসে না।

তিনি আরো বলেন, স্থানীয় চাষিরা বিষয়টি তাকে জানিয়েছে কিন্তু এই স্লুইস গেটের মেরামতের অভিজ্ঞতা স্থানীয়দের না থাকায় এর সমস্যা সমাধান করা যাচ্ছে না। যার ফলে এলাকার কৃষকেরা খুবই বিপাকে পড়েছে।

এ ব্যাপারে ফকিরহাটের ইউএনও শাহনাজ পারভীনের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। এছাড়া স্থানীয়রা যাতে নতুন করে আর ক্ষতিগ্রস্থ না হয়, সে ব্যাপারে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন তিনি।

ডেইলি বাংলাদেশএমকে