পদ্মাসেতুর সুফল সরাসরি পাবে যে ২১ জেলা
15-august

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১১ আগস্ট ২০২২,   ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯,   ১২ মুহররম ১৪৪৪

Beximco LPG Gas
15-august

পদ্মাসেতুর সুফল সরাসরি পাবে যে ২১ জেলা

ফাতেমী আহমেদ রুমী ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৩১ ২৫ জুন ২০২২  

আলো ঝলমলে স্বপ্নের পদ্মাসেতু

আলো ঝলমলে স্বপ্নের পদ্মাসেতু

খুলেছে পদ্মাসেতুর দ্বার। রোববার (২৬ জুন) থেকেই সেতুতে চলবে গাড়ি। সারাদেশের মানুষ পদ্মাসেতুর সুবিধা পাবে, তবে সরাসরি সুফল ভোগ করবে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১টি জেলা। এ কারণে এসব জেলার মানুষের উচ্ছ্বাসও বেশি।

কোন কোন জেলার মানুষ সরাসরি পদ্মাসেতুর সুফল ভোগ করবে
দেশের দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চলের এই ২১টি জেলা তিনটি বিভাগের আওতাভুক্ত। ঢাকা, বরিশাল ও খুলনা বিভাগ। এর মধ্যে ঢাকা বিভাগের ৫টি, বরিশাল বিভাগের ৬টি ও খুলনা বিভাগের আওতাধীন রয়েছে ১০টি জেলা।

ঢাকা বিভাগের জেলাগুলো হলো- শরীয়তপুর, মাদারীপুর, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ ও রাজবাড়ী।

বরিশাল বিভাগের ৬টি জেলা হলো- বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, পটুয়াখালী, বরগুনা ও ভোলা।

খুলনা বিভাগের আওতাভুক্ত জেলাগুলো হলো- খুলনা, কুষ্টিয়া, মেহেরপুর, চুয়াডাঙ্গা, ঝিনাইদহ, মাগুরা, যশোর, নড়াইল, বাগেরহাট ও সাতক্ষীরা।

পদ্মা নদীর তীরবর্তী জেলা মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন বলেন, পদ্মাসেতুর কারণে মাদারীপুরে কৃষি, মৎস্য ও পশুপালন খাতে ব্যাপক পরিবর্তন আসবে। এখন থেকে সহজেই এ জেলার মানুষের উৎপাদিত বিভিন্ন পণ্য রাজধানীর বাজারে বিক্রি করা যাবে। এতে করে কৃষক-খামারি ও ব্যবসায়ীসহ সব পেশার মানুষ উপকৃত হবে। পদ্মাসেতু মাদারীপুরের অর্থনীতি ও জীবনযাত্রায় আশীর্বাদ হয়ে এসেছে।

খুলনার ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় কমিশনার মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, পদ্মাসেতু দিয়ে খুলনা বিভাগের সব জেলার মানুষ সরাসরি সড়কপথে রাজধানীর সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবে। এ সেতু খুলনার কৃষি, অর্থনীতিসহ নানা খাতে ইতিবাচক পরিবর্তন আনবে।

বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক নীরব হোসেন টুটুল বলেন, বরিশালের সর্বস্তরের জনগণের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই। শত বাধা মোকাবিলা করে দক্ষিণাঞ্চলসহ সারাদেশের মানুষের স্বপ্নের পদ্মাসেতু বাস্তবায়ন করে দেখিয়েছেন তিনি। বরিশাল বিভাগের সব জেলার মানুষ এ সেতুর সুফল ভোগ করবে। পদ্মাসেতু রাজধানীর সঙ্গে দক্ষিণাঞ্চলের সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থায় সবচেয়ে বড় পরিবর্তন এনেছে। শিগগিরই অত্যাধুনিক ও বিলাসবহুল সব বাস ঢাকা থেকে দক্ষিণাঞ্চলে সেবা দেওয়া শুরু করবে।

এদিকে পদ্মাসেতুর উদ্বোধন উদযাপন উপলক্ষে গোপালগঞ্জে তিন দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে জেলা প্রশাসন। শনিবার সকালে বর্ণাঢ্য র‍্যালির মধ্য দিয়ে কর্মসূচি শুরু হয়েছে। র‍্যালি শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা বলেন, পদ্মাসেতু বাঙালি জাতির অনন্য অর্জন। এ অর্জনের মধ্য দিয়ে আমরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার পথে আরো এক ধাপ এগিয়ে গেলাম। বহু চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের স্বপ্নের পদ্মাসেতু বাস্তবায়ন করে দেখিয়েছেন তিনি না থাকলে আমরা কোনোদিন এ সেতু পেতাম না।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর

English HighlightsREAD MORE »