মেনুতে উল্লিখিত টাকা নিয়েও খাবারের আইটেম কম কেন?

ঢাকা, রোববার   ২৮ নভেম্বর ২০২১,   অগ্রহায়ণ ১৪ ১৪২৮,   ২১ রবিউস সানি ১৪৪৩

মেনুতে উল্লিখিত টাকা নিয়েও খাবারের আইটেম কম কেন?

রিয়াজুল হক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:১২ ৪ সেপ্টেম্বর ২০২১  

ফুডপান্ডা থেকে গত তিন-চার মাস ধরে মাঝেমধ্যেই আমি বিভিন্ন রেস্টুরেন্টের খাবার অর্ডার করে থাকি। এর মধ্যে কয়েকটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা উল্লেখ করছি। ভিন্ন ভিন্ন রেস্টুরেন্ট থেকেই প্রতিটি ঘটনার অভিজ্ঞতা অর্জন। 

১। ত্রিশটা সামুচা অর্ডার করেছিলামলাম। প্যাকেট রিসিভ করার পর দেখি, সামুচা ২৫টি।  অর্থাৎ পাঁচটি সামুচা কম দেয়া হয়েছে।

২। সেট মেনু থেকে অর্ডার করলাম। দুই পিস চিলি চিকেন দেওয়ার কথা থাকলেও খাবার খাওয়ার সময় দেখলাম এক পিস চিলি চিকেন দেওয়া হয়েছে।

৩। সেট মেনুতে উল্লেখ ছিল দুই পিস ফ্রাইড চিকেন। প্যাকেট খুলে পেলাম একটি ফ্রাইড চিকেন। মেনুতে ড্রিংসয়ের কথা উল্লেখ থাকলেও কোন ড্রিংস পাঠানো হয়নি।

ফুডপান্ডা অনেক ছোট ছোট প্রতিষ্ঠানকে একটি ছাতার মধ্যে নিয়ে এসেছে। একটা ভালো ডিসট্রিবিউশন চ্যানেল তৈরি করেছে। ছোট ছোট প্রতিষ্ঠানের বিক্রি বেড়েছে। অনেকেই বাসায় খাবার তৈরি করে ফুডপাণ্ডার মাধ্যমে বিক্রি করছেন। রাইডারদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা ব্যবস্থা হচ্ছে। এগুলো অবশ্যই ভালো দিক।

কিন্তু যেসব রেস্টুরেন্ট তাদের নৈতিকতা ঠিক রাখছে না, অর্ডার মত টাকা নিয়েও খাবারের আইটেম কম দিচ্ছে, তাদের বিষয়ে ফুডপাণ্ডার পদক্ষেপ কি? পরিচিত কয়েকজনের সাথে কথা বলে জেনেছি, তারাও একই ধরনের সমস্যার শিকার হয়েছেন। 

ব্যক্তিগতভাবে আমি যখন অর্ডার মত খাবার পাইনি অর্থাৎ কম পেয়েছি, ফুডপান্ডায় কয়েকবার অভিযোগ জানাই। তারা ব্যবস্থা নেবে জানিয়ে উত্তর দিলেও আমি আর কোন আপডেট তাদের কাছ থেকে পাইনি। যদি ফুডপান্ডা সমস্যার সমাধান করত, তাহলে অভিযোগের সমাধান পেতাম। এমনকি কিছু টাকা রিফান্ড পাবারও কথা। এতে করে যেসব প্রতিষ্ঠান খাবার কম দিয়েছে কিন্তু মেনুতে উল্লিখিত টাকা নিয়েছে, তারা ভবিষ্যতে এই ধরনের কাজ করতে পারত না।

এক মুরব্বির কাছ থেকে কয়েকদিন আগে শুনছিলাম, অমুক প্রতিষ্ঠান তো ব্যবসা করতে আসেনি, আসছে বাণিজ্য করতে। অর্থাৎ অনেকেই ব্যবসা শব্দটাকে ইতিবাচক হিসেবে দেখলেও বাণিজ্য শব্দটাকে অনেক ক্ষেত্রে নেতিবাচক অর্থে ব্যবহার করে থাকে।

সেই মুরব্বির কথার সুর ধরে বলা যেতে পারে, ফুডপান্ডায় কিছু প্রতিষ্ঠান আছে, যারা ব্যবসা করতে নয়, বাণিজ্য করতেই বাজারে এসেছে। নৈতিকতা বিবর্জিত এসব প্রতিষ্ঠানের বিষয়ে ফুডপাণ্ডার দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন। কারণ ফুডপাণ্ডার চ্যানেল ব্যবহার করেই তারা তাদের অনলাইন বাণিজ্য কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

লেখক- যুগ্ম পরিচালক, বাংলাদেশ ব্যাংক।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএইচ