উবারের রাইডারও বাড়তি টাকা চায়!

ঢাকা, শনিবার   ১৯ জুন ২০২১,   আষাঢ় ৫ ১৪২৮,   ০৭ জ্বিলকদ ১৪৪২

উবারের রাইডারও বাড়তি টাকা চায়!

রিয়াজুল হক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:৩১ ১৬ মে ২০২১   আপডেট: ১৩:৩৩ ১৬ মে ২০২১

একটা নতুন অভিজ্ঞতা হলো। এয়ারপোর্ট এরিয়া থেকে উবার (Uber) অ্যাপ এর মাধ্যমে কার (car) রিকোয়েস্ট পাঠিয়েছি। 

সাধারণত যেটা হয়, রিকোয়েস্ট পাঠানোর পর রাইডার ফোন নম্বরে ফোন করে। তবে আজকে এক রাইডার আমাকে মোবাইল ফোনের নম্বরে ফোন না দিয়ে, ইন্টারনেটের মাধ্যমে ফোন দিলেন। যেমনটা ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে কথা হয়, এ রকম ইন্টারনেট ভয়েস কল সুবিধা যে উবারের আছে, এটা আজকেই জানলাম।

যাই হোক, ইন্টারনেটে ফোন দিয়ে বললেন, আমি উবার থেকে বলছি, আপনি কোথায় যাবেন?

আমি: মতিঝিল।
রাইডার: যে বিল আসে, তার থেকে ৫০০ টাকা বাড়াইয়া দিয়েন।

আমি: মানে কি? আমি আপনার কথা বুঝলাম না।
রাইডার: অনেক দূর তো। বিল যেটা আসে, তার সাথে ৫০০ টাকা বাড়াইয়া দিয়েন।

আমি: আপনি উবার অ্যাপ ব্যবহার করছেন না?
রাইডার: হ্যাঁ।

আমি: আমার রিকোয়েস্ট গেছে তো উবার অ্যাপ এর মাধ্যমে।
রাইডার: জ্বি।

আমি: অ্যাপে দেখাচ্ছে বিল ৫৪০ টাকা। আর আপনি আরো ৫০০ টাকা আলাদা চাচ্ছেন কেন? উবার কি বাড়তি টাকা নেয়া আপনাদের পারমিট করে?

রাইডার: আর কোনো কথা বলে না। কী আর করা? লাইন কেটে দিলাম।

পরে বুঝলাম, কেন সেই রাইডার আমাকে মোবাইল নম্বরে ফোন না দিয়ে ইন্টারনেট ভয়েজ অ্যাপের মাধ্যমে ফোন দিয়েছিল। কারণ, রাইডারের ফোন নম্বরসহ ফোনের কথাবার্তা যদি রেকর্ড করে রাখি।

সরাসরি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান হওয়ার কারণে উবারের উচিত রাইডারদের কার্যক্রম নজরদারিতে রাখা। আর উবারের অ্যাপ ব্যবহারকারী কোনো যাত্রী যেন ভোগান্তির শিকার না হয়, সেই নিশ্চয়তাও শতভাগ প্রদান করতে হবে। কারণ অব্যবস্থাপনার কারণে একটা প্রতিষ্ঠিত প্রতিষ্ঠানের ভরাডুবি হতে কিন্তু বেশি সময় লাগে না।

লেখকঃ যুগ্ম পরিচালক, বাংলাদেশ ব্যাংক

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর