শরীয়তপুরে চার লেন সড়ক দ্রুত করার দাবি: পানিসম্পদ উপমন্ত্রী
15-august

ঢাকা, বুধবার   ১০ আগস্ট ২০২২,   ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯,   ১১ মুহররম ১৪৪৪

Beximco LPG Gas
15-august

শরীয়তপুরে চার লেন সড়ক দ্রুত করার দাবি: পানিসম্পদ উপমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০১:২৯ ৩০ জুন ২০২২   আপডেট: ১৮:৪৭ ৩০ জুন ২০২২

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম- ফাইল ফটো

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম- ফাইল ফটো

পদ্মাসেতুর অ্যাপ্রোচ সড়ক থেকে শরীয়তপুর পর্যন্ত চার লেন দ্রুত বাস্তবায়নের অনুরোধ করেছেন পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম। 

বুধবার একাদশ জাতীয় সংসদের বাজেট ২০২২-২৩ অধিবেশনের ওপর বক্তব্য দেওয়ার সময় তিনি এ অুনরোধ জানান। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এ সময় প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা উপস্থিত ছিলেন। 

শরীয়তপুরের চার লেনের গুরুত্ব তুলে ধরে এনামুল হক শামীম বলেন, স্পিকারকে পদ্মাসেতু থেকে শরীয়তপুরের চার লেন দ্রুত করার অনুরোধ জানাচ্ছি। আগেই রাস্তাটি হওয়া দরকার ছিল। পদ্মাসেতু হতে শরীয়তপুর এবং আলু বাজার পর্যন্ত ফোর লেন না হবার বিষয়ে প্রধামন্ত্রীকে বললাম। এরপর ২৪ মার্চ ২০১৯ সালে যোগাযোগমন্ত্রীকে আমি, ইকবাল হোসনে অপু ও নাহিম রাজ্জাক ডিও লেটার দিলাম। তিন সংসদ সদস্য মিলে সেতু সচিবরে সঙ্গে একাধিক সভা করেছি। বর্তমানে ৩৪১ কোটি টাকার কাজ চলছে একটি প্রকল্পে। আরেকটি প্রকল্পে কাজ চলছে  ৪০৫ কোটি টাকার। এছাড়া ১২শ’ ৩১ কোটি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ভূমি অধিগ্রহণে।' এজন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা  জানাচ্ছি। আমি  যোগাযোগমন্ত্রীকে অনুরোধ করবো চার লেনের কাজটি দ্রুত শেষ করে  রেললাইনের কাজ শুরু করার জন্য।

পদ্মাসেতুর নির্মাণ করায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে উপমন্ত্রী শামীম বলেন, পদ্মাপাড়ের মানুষ হিসেবে জাতির পিতার বীর কন্যা দেশরত্ম শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই বহুল আকাঙ্ক্ষিত পদ্মাসেতু নির্মাণ করার জন্য। বঙ্গববন্ধুর জন্ম না হলে যেমন বাংলাদেশ হতো না, তেমনি বঙ্গবন্ধুরকন্যা শেখ হাসিনা না হলে স্বপ্নের পদ্মাসেতু হতো না। আমরা পদ্মাপাড়েরর মানুষ; আমাদের অনুভূতিটা ভিন্ন। চিফ হুইপের নেতৃত্বে ১৫ দিন পদ্মাপাড়ে কাজ করেছি জনসভা সফল করার জন্য। এ অঞ্চলের মানুষের আবেগ, উচ্ছ্বাস ভিন্ন ধরনের। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও সালাম জানিয়েছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএস/এমআরকে

English HighlightsREAD MORE »