পদ্মাসেতু দক্ষিণাঞ্চলের অর্থনীতির লাইফ লাইন হিসেবে কাজ করবে: স্পিকার
15-august

ঢাকা, সোমবার   ১৫ আগস্ট ২০২২,   ১ ভাদ্র ১৪২৯,   ১৬ মুহররম ১৪৪৪

Beximco LPG Gas
15-august

পদ্মাসেতু দক্ষিণাঞ্চলের অর্থনীতির লাইফ লাইন হিসেবে কাজ করবে: স্পিকার

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:৪৬ ২৫ জুন ২০২২   আপডেট: ১৭:৪০ ২৫ জুন ২০২২

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী- ফাইল ফটো

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী- ফাইল ফটো

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, বাঙালি জাতির জীবনে আজকে একটি গৌরবোজ্জ্বল দিন। আমরা জাতি হিসেবে আজকে আত্মমর্যাদা, আত্মবিশ্বাস এবং আত্মনির্ভরতার একটা পরিচয় সারাবিশ্বে দিতে পেরেছি। এই পদ্মাসেতু বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের অর্থনীতির লাইফ লাইন হিসেবে কাজ করবে।

তিনি বলেন, স্ব-অর্থায়নে সর্ববৃহৎ একটি অবকাঠামো এ পদ্মাসেতু। আমাদের প্রাণের সেতু এটি। দক্ষিণবঙ্গের ২১ জেলার সঙ্গে সারাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির জায়গায় অনেক গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।

শনিবার পদ্মাসেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

স্পিকার বলেন, আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আন্তরিক অভিনন্দন জানাই। কেননা প্রধানমন্ত্রী দৃঢ়তা, অদম্য সাহস, সততা এবং দেশের মানুষের প্রতি তার অঢেল ভালোবাসার কারণে এই পদ্মাসেতু নির্মাণ সম্ভব হয়েছে। এই সেতু শুধু ইট-পাথরে গাঁথা একটি সেতু নয়। এটা আমাদের গৌরবের সেতু। ভালোবাসা এবং অহংকারের সেতু।

ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, যিনি বাঙালির অধিকার প্রতিষ্ঠায় আজীবন আপসহীন সংগ্রাম করে গেছেন, কিন্তু কখনও মাথা নত করেননি। সে জিনিসটিই আমরা পুনর্বার দেখেছি।

স্পিকার বলেন, আওয়ামী লীগের যে মূল দর্শন যেটা আমরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কাছ থেকে শিখেছি, সেটা হচ্ছে দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানো এবং এদেশের মানুষের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক মুক্তির জন্যই জাতির পিতা সারাজীবন সংগ্রাম করেছেন। রাজনৈতিক মুক্তি অর্জিত হলেও অর্থনৈতিক মুক্তির লক্ষ্যেই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। কাজেই সে অর্থনৈতিক মুক্তি অর্জনের পদ্মাসেতু তো অবশ্যই একটা অনেক বড় ও গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে এবং দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলের মানুষের বাণিজ্য, আর্থসামাজিক প্রেক্ষাপট প্রতিটি ক্ষেত্রেই এই সেতু অবদান রাখবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে

English HighlightsREAD MORE »