সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পাঁচ হাজার বৃক্ষরোপণ করা হবে: মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী

ঢাকা, শনিবার   ২৫ জুন ২০২২,   ১১ আষাঢ় ১৪২৯,   ২৬ জ্বিলকদ ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পাঁচ হাজার বৃক্ষরোপণ করা হবে: মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক   ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১০:৩৩ ২৩ জুন ২০২২   আপডেট: ১৪:৩৯ ২৩ জুন ২০২২

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মল হক- ফাইল ফটো

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মল হক- ফাইল ফটো

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানকে দৃষ্টিনন্দন ও সবুজের সমারোহে ভরে তুলতে প্রায় পাঁচ হাজার বিভিন্ন প্রজাতির বৃক্ষরোপণ করা হবে।

বুধবার বিকেলে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বৃক্ষরোপণ কার্যক্রম উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- স্থাপত্য অধিদফতরের প্রধান স্থপতি মীর মনজুরুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্তিকা, পানি ও পরিবেশ বিভাগের অধ্যাপক ড. হারুনর রশিদ খানসহ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও গণপূর্ত অধিদফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী বলেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান বাংলাদেশের ইতিহাসে এক গুরুত্বপূর্ণ ও গৌরবোজ্জ্বল স্থান। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এখানেই ১৯৭১ সালে ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ দেন এবং বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতার ডাক দেন। ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর এখানেই পাকিস্তানি বাহিনী আত্মসমর্পণ করে। বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়ে ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি স্বদেশে ফিরে বঙ্গবন্ধু এখানেই কান্নায় ভেঙ্গে পড়া আবেগঘন ভাষণ দিয়েছিলেন।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনে বিভিন্ন সময়ের আন্দোলন ও ঘটনাসহ মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস ভবিষ্যৎ প্রজন্মের নিকট তুলে ধরার উদ্দেশ্যে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতায় ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এরই মধ্যে শিখা চিরন্তন, স্বাধীনতা স্তম্ভ ও ভূগর্ভস্থ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর প্রভৃতি নির্মাণ করা হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় বর্তমানে ‘ঢাকাস্থ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বাধীনতা স্তম্ভ নির্মাণ (৩য় পর্যায়)’ শীর্ষক একটি প্রকল্প বাস্তবায়নাধীন রয়েছে।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের জন্য প্রণীত স্থাপত্য নকশা ও এর আলোকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বাধীনতা স্তম্ভ নির্মাণ (৩য় পর্যায়) প্রকল্পের আওতায় চলমান কার্যক্রম অবহিতকরণ ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানকে সবুজায়নের বিষয়ে উদ্ভিদবিদ, পরিবেশবিদ, স্থপতি, প্রকৌশলী ও সুশীল সমাজের মূল্যবান মতামত বা পরামর্শ গ্রহণের লক্ষ্যে ঢাকার সেগুনবাগিচাস্থ গণপূর্ত ভবনের সম্মেলন কক্ষে গত বছরের ২৪ জুন একটি কর্মশালার আয়োজন করা হয়। ঐ কর্মশালায় প্রাপ্ত মতামত বা পরামর্শের আলোকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কী কী গাছ লাগানো যায় তা সুপারিশের জন্য গত বছরের ১৮ আগস্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়।

কমিটির দাখিলকৃত প্রতিবেদনে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের পুরো এলাকায় গাছ লাগানোর সুষ্ঠু বিন্যাসের সুবিধার্থে উদ্যানের প্রকল্প এলাকা সাতটি জোনে ভাগ করে বিদ্যমান গাছের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে জোনগুলোর ভিন্ন ভিন্ন অংশে বিভিন্ন প্রজাতির বৃক্ষরোপণের সুপারিশ করা হয়েছে।

ঐ কমিটির দাখিলকৃত প্রতিবেদনের সুপারিশের আলোকে ‘ঢাকাস্থ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বাধীনতা স্তম্ভ নির্মাণ (৩য় পর্যায়)’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বৃক্ষরোপণ কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ/এইচএন

English HighlightsREAD MORE »