বহির্গমন অনুমতি ছাড়া বিটিভি পরিচালকের বিদেশ ভ্রমণ

ঢাকা, শুক্রবার   ২১ জানুয়ারি ২০২২,   ৮ মাঘ ১৪২৮,   ১৬ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

বহির্গমন অনুমতি ছাড়া বিটিভি পরিচালকের বিদেশ ভ্রমণ

মো: আব্দুল্লাহ আল মামুন ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:০৯ ৮ ডিসেম্বর ২০২১   আপডেট: ০৬:২৬ ৯ ডিসেম্বর ২০২১

বিটিভির অনুষ্ঠান  পরিকল্পনা বিভাগের পরিচালক জগদীশ চন্দ্র এষ- ফাইল ফটো

বিটিভির অনুষ্ঠান পরিকল্পনা বিভাগের পরিচালক জগদীশ চন্দ্র এষ- ফাইল ফটো

বাংলাদেশ টেলিভিশন (বিটিভি) এর পরিচালক (অনুষ্ঠান ও পরিকল্পনা) জগদীশ চন্দ্র এষ- এর বিরুদ্ধে বহির্গমন অনুমতি (জিও) ছাড়া ব্যক্তিগত পাসপোর্ট ব্যবহার করে বিদেশ ভ্রমণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, চলতি বছরের ২৬ অক্টোবর থেকে জগদীশ চন্দ্র এষ ব্যক্তিগত ছুটি নিয়ে প্রায় ২০ দিন সরকারি আদেশ/অনুমতি ব্যতীত (জিও) আমেরিকা ভ্রমণ করেন এবং তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছবি পোস্ট করেন। 

অভিযোগ রয়েছে, এ ভ্রমণে তিনি সরকারি পাসপোর্ট ব্যবহার না করে তার ব্যক্তিগত পাসপোর্ট ব্যবহার করেন। ফলে তিনি যে সরকারি চাকরিতে নিয়োজিত আছেন তা ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ শনাক্ত করতে পারেনি; যা প্রতারণা ও সরকারি শৃঙ্খলা পরিপন্থী।

এছাড়াও ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে একইভাবে তার বিরুদ্ধে ভারত ভ্রমণের অভিযোগও পাওয়া গেছে।

এ ধরনের ভ্রমণগুলো সম্পূর্ণ অবৈধ বলে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সচিব বরাবর অভিযোগ করেন বিটিভির কণ্ঠশিল্পী রিমন মাহফুজ। অভিযোগপত্রে তিনি জানান, এসব অবৈধ ভ্রমণ ও বেআইনি কর্মকাণ্ডের বিষয়গুলো জানা সত্ত্বেও বিটিভির সাবেক ও বর্তমান মহাপরিচালকরা নিরব দর্শকের ভূমিকা পালন করেন। 

তিনি আরো বলেন, জগদীশ চন্দ্র এষ যে কর্মকাণ্ড করছেন তা নিঃসন্দেহে প্রতারণার সামিল। তার এই ব্যক্তিগত অবৈধ ভ্রমণের মূল উদ্দেশ্য অবৈধ অর্থ পাচার করা ছাড়া আর কিছু নয়। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আরো আগে এ বিষয়ে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত ছিলো। যদিও তারা তা করেননি। কেন করেননি তা আমার বোধগম্য নয়। ফলে এর দায় দায়িত্ব তারা কোনোভাবেই এড়াতে পারেন না বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

জানতে চাইলে জগদীশ চন্দ্র এষ ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতি সাপেক্ষে আমি আমেরিকা গিয়েছি। এর বাইরে আমার কিছু বলার নেই।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালক সোহরাব হোসেন ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, জগদীশ চন্দ্র এষ ছুটি নিয়েছিলেন এ বিষয়টি আমি জানি। কিন্তু তিনি যে আমেরিকা ভ্রমণ করেছেন তা আমার জানা ছিলো না। তিনি যখন আমেরিকাতে গিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছবি পোস্ট করেন তখন বিষয়টি আমার নজরে আসে। 

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে একইভাবে জাগদীশ চন্দ্রের বিরুদ্ধে ভারত ভ্রমণের অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে বিটিভি মহাপরিচালক বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। কিন্তু সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়া আমরা কীভাবে ব্যবস্থা নেব? এখন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। আমরা তদন্ত করে দেখবো, অভিযোগ প্রমাণিত হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব। 

প্রসঙ্গত, সরকারি কর্মকর্তাদের ‘কাল্পনিক ও উদ্দেশ্যহীন’ বিদেশ ভ্রমণ এবং জনগণের টাকার অপচয় বন্ধে সম্প্রতি তিন নির্দেশনা এসেছে হাইকোর্টের এক রায়ের পর্যবেক্ষণে।

হাইকোর্ট বলেছেন, অতিরিক্ত সচিব তার নিচের পদমর্যাদার সরকারি কর্মকর্তাদের সরকারি সফর বা ভ্রমণে বিদেশে যাওয়ার আগে কেবল সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় নয়, অর্থ মন্ত্রণালয় ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকেও অনুমতি নিতে হবে।

এসব দফতর থেকে অনুমতি না পাওয়া পর্যন্ত কোনো সরকারি কর্মকর্তা বিদেশ সফরে যেতে পারবেন না। সফর শেষে দেশে ফিরে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে সফরের ব্যয় ও বিশদ বর্ণনা দিয়ে অর্থ মন্ত্রণালয় ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে প্রতিবেদন দিতে হবে।

এক রিটে মামলার বিচার শেষে গত বছরের ১৭ ডিসেম্বর হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের পর্যবেক্ষণে এই তিন নির্দেশনা আসে। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এএএম/এমএস/এনকে

English HighlightsREAD MORE »