ভুয়া বিলে গায়েব এসএফসিএলের পৌনে ৩৯ কোটি টাকা, দুদকের ১৫ মামলা

ঢাকা, শুক্রবার   ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ২ ১৪২৮,   ০৮ সফর ১৪৪৩

ভুয়া বিলে গায়েব এসএফসিএলের পৌনে ৩৯ কোটি টাকা, দুদকের ১৫ মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:২৮ ৪ আগস্ট ২০২১   আপডেট: ২০:২৯ ৪ আগস্ট ২০২১

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

ভুয়া বিল তৈরির মাধ্যমে রাষ্ট্রীয় মালিনাকাধীন শাহজালাল ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিমিটেডের (এসএফসিএল) একটি প্রকল্পের ৩৮ কোটি ৭১ লাখ ২৪ হাজার ৯০২ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এ অভিযোগে ১৫টি মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

সংস্থাটির উপ-পরিচালক মো. নূরে আলম দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে মামলাগুলো করেন। এ বিবাদী করা হয়েছে সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জের শাহজালাল ফার্টিলাইজার প্রকল্পের দুই কর্মকর্তা ও আট ঠিকাদারকে।  

মামলার আসামিরা হলেন- শাহজালাল ফার্টিলাইজার প্রকল্পের বরখাস্ত হওয়া সহকারী প্রধান হিসাবরক্ষক ও হিসাব বিভাগীয় প্রধান খোন্দকার মুহাম্মদ ইকবাল, বরখাস্ত হওয়া রসায়নবিদ নেছার উদ্দিন আহমদ, মেসার্স টিআই ইন্টারন্যাশনালের মালিক মোসাম্মৎ হালিমা আক্তার, মেসার্স রাফী এন্টারপ্রাইজের মালিক মো. নূরুল হোসেন, ফালগুনী ট্রেডার্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এএসএম ইসমাইল খান, মেসার্স আয়মান এন্টারপ্রাইজের মালিক সাইফুল হক, মেসার্স এন আহমদ অ্যান্ড সন্সের মালিক নাজির আহমদ, মেসার্স মা এন্টারপ্রাইজের মালিক মো. হেলাল উদ্দিন, মেসার্স ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনালের মালিক মো. জামশেদুর রহমান খন্দকার এবং মেসার্স সাকিব ট্রেডার্সের মালিক আহসান উল্লাহ চৌধুরী।

এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন দুদকের উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) মুহাম্মদ আরিফ সাদিক।

মামলার এজাহারে বলা হয়, শাহজালাল ফার্টিলাইজার প্রকল্পের দুই কর্মকর্তা খোন্দকার মুহাম্মদ ইকবাল ও নেছার উদ্দিন আহমদ ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের আট মালিকের সঙ্গে যোগসাজশ করে ভুয়া বিল-ভাউচার তৈরির মাধ্যমে বিভিন্ন সময়ে ৩৮ কোটি ৭১ লাখ ২৪ হাজার ৯০২ টাকা আত্মসাৎ করেছেন। দুদকের অনুসন্ধানে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ধারায় মামলাগুলো করা হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ