দেশে পৌঁছেছে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীদের পাঠানো ২৫০ ভেন্টিলেটর

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ১৪ ১৪২৮,   ১৯ সফর ১৪৪৩

দেশে পৌঁছেছে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীদের পাঠানো ২৫০ ভেন্টিলেটর

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:১৭ ২৪ জুলাই ২০২১   আপডেট: ২১:১৮ ২৪ জুলাই ২০২১

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

করোনা সংকট মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে যুক্তরাষ্ট্রের প্রবাসীদের পাঠানো ২৫০টি পোর্টেবল আইসিইউ ভেন্টিলেটর দেশে পৌঁছেছে। 

শনিবার রাত সাড়ে ৮টায়  হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিবানবন্দরে ভেন্টিলেটরগুলো পৌঁছায়।

করোনাভাইরাস মানুষের ফুসফুসে আক্রমণ করে, কখনো কখনো এমন অবস্থা তৈরি হয় যে রোগী ঠিক মতো শ্বাস নিতে পারে না। এ সময় রোগীর দেহে অক্সিজেনের মাত্রা কমে যাওয়ার পাশাপাশি কার্বন ডাইঅক্সাইডের মাত্রা বেড়ে যায়। ফলে রোগীর মস্তিষ্ক ও হৃদপিণ্ডের মতো গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ প্রত্যঙ্গও অচল হয়ে যেতে পারে।

এ জটিল পরিস্থিতি মোকাবিলা করে ভেন্টিলেটর। এ যন্ত্রটি তখন নাক কিম্বা মুখের ভেতর দিয়ে অথবা গলায় ছিদ্র করে লাগানো টিউবের সাহায্যে ফুসফুসে অক্সিজেন সরবরাহ করে এবং দেহ থেকে কার্বন ডাই অক্সাইড বের কিরে নিয়ে আসে। কম্পিউটারের সাহায্যে এই যন্ত্রটি পরিচালনা করা হয়।

কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত রোগীদের ক্ষেত্রে দেখা গেছে পরস্থিতি গুরুতর হলে রোগীর নিউমোনিয়া হয়, ফলে তার ফুসফুসের নিচে অংশ পানি জমে যায় এবং তখন শ্বাসগ্রহণ কঠিন হয়ে দাঁড়ায়।

ভেন্টিলেটর ছাড়া ওই রোগী তখন আর শ্বাস নিতে পারে না। যন্ত্রটি তখন ফুসফুস থেকে পানি ও রোগীর দেহ থেকে কার্বন ডাই অক্সাইড বের করে নিয়ে আসে এবং ফুসফুসে অক্সিজেন সরবরাহ করে কৃত্রিমভাবে রোগীকে বাঁচিয়ে রাখে।

রোগী যতক্ষণ পযন্ত স্বাভাবিকভাবে নিশ্বাস গ্রহণ করতে না পারে ততক্ষণ ভেন্টিলেটর লাগানো থাকে। এসময় তিনি কথা বলতে পারেন না, মুখ দিয়ে কিছু খেতেও পারেন না। সে সময় তাকে টিউবের সাহায্যে খাবার দেওয়া হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ