আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে দারিদ্র্য দূরীকরণের ব্যবস্থা হচ্ছে: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, বুধবার   ২৮ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ১৪ ১৪২৮,   ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে দারিদ্র্য দূরীকরণের ব্যবস্থা হচ্ছে: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

ইসলামপুর (জামালপুর) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৪৮ ২০ জুন ২০২১   আপডেট: ১৬:০৮ ২০ জুন ২০২১

জামালপুরের ইসলামপুরে ২০০টি পরিবারের মাঝে ঘরের সনদ, চাবি, জমির দলিল ও অন্যান্য উপহার বিতরণ করছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান

জামালপুরের ইসলামপুরে ২০০টি পরিবারের মাঝে ঘরের সনদ, চাবি, জমির দলিল ও অন্যান্য উপহার বিতরণ করছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের গৃহীত বিশেষ কার্যক্রম আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে দারিদ্র্য দূরীকরণের ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান।

রোববার জামালপুরের ইসলামপুরে ২০০টি পরিবারের মাঝে ঘরের সনদ, চাবি, জমির দলিল ও অন্যান্য উপহার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এ কথা জানান।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে জমি ও ঘর প্রদান কার্যক্রমের দ্বিতীয় পর্যায়ের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেই অনুষ্ঠানের সঙ্গে সমন্বয় রেখে ইসলামপুর উপজেলা প্রশাসন অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের গৃহীত বিশেষ কার্যক্রম হলো আশ্রয়ণ প্রকল্প। এ প্রকল্পের মাধ্যমে ভূমিহীন-গৃহহীন, ছিন্নমূল, অসহায়, দরিদ্র জনগোষ্ঠীর পুনর্বাসন করা, ঋণদান ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তাদের জীবিকা নির্বাহ সক্ষম করে তোলা এবং আয়বর্ধক কার্যক্রম সৃষ্টির মাধ্যমে দারিদ্র্য দূরীকরণের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, আশ্রয়ণ প্রকল্পে জমি ও ঘর প্রদানের সঙ্গে সবুজ বেষ্টনী, নির্মল পরিবেশ তৈরি, উপকারভোগীদের চাহিদা পূরণে বনজ বৃক্ষ রোপণ, বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান, প্রত্যেকটি পরিবারের জন্য বিশুদ্ধ খাবার পানি, টয়লেট সুবিধা, স্বাস্থ্যসেবা এবং শিশুদের প্রাথমিক বিদ্যালয় গমন নিশ্চিতকরণসহ সব নাগরিক সুবিধা প্রদান করা হচ্ছে।

মো. ফরিদুল হক খান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০২১ সালের ২৩ জানুয়ারি প্রথম পর্যায়ে ৬৯ হাজার ৯০৪টি পরিবারকে জমিসহ ঘর প্রদান করেন। দ্বিতীয় পর্যায়ে ২০২১ সালের ২০ জুন আরো ৫৩ হাজার ৩৪০টি পরিবারকে জমিসহ ঘর প্রদান কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন। পর্যায়ক্রমে দেশের সব ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় আনা হবে।

তিনি আরো বলেন, ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত সোনার বাংলা বিনির্মাণে মুজিববর্ষে ‘বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না’ বলে ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার নির্দেশনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এরই মধ্যে সারাদেশের ভূমিহীন ও গৃহহীন ৮ লাখ ৮৫ হাজার ৬২২টি পরিবারের তালিকা করা হয়েছে। এর মধ্যে ভূমিহীন ও গৃহহীন অর্থাৎ ‘ক’ শ্রেণির পরিবার ২ লাখ ৯৩ হাজার ৩৬১টি এবং ১-১০ শতাংশ জমি আছে কিন্তু ঘর নেই জরাজীর্ণ এমন অর্থাৎ ‘খ’ শ্রেণির পরিবার সদস্য সংখ্যা ৫ লাখ ৯২ হাজার ২৬১টি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে ভূমিহীন-গৃহহীন ছিন্নমূল মানুষকে শুধু ঘর প্রদান করা হয় না, পুনর্বাসিত পরিবারগুলোকে প্রশিক্ষণ, ঋণ, শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কার্যক্রমসহ বিভিন্ন সুবিধা প্রদান করে তাদের জাতীয় অর্থনীতির মূলধারায় সম্পৃক্ত করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, ঘরের নিশ্চয়তা বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের সাংবিধানিক অধিকার। একটি ঘর শুধু মাথা গোঁজার ঠাঁই নয়, একজন মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তি এবং আত্মমর্যাদা নিয়ে বেঁচে থাকার প্রেরণা।

ইসলামপুরের ইউএনও এস এম মাজহারুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ইসলামপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট এস এম জামাল আব্দুন নাছের বাবুল, অতিরিক্ত এসপি (ইসলামপুর সার্কেল) সুমন মিয়া, ইসলামপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক আকন্দ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রোজিনা আক্তার চায়না, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা ডা. এটিএম আবু তাহের প্রমুখ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ/এইচএন