আরো ৩৫টি ড্রেজার সংগ্রহের কার্যক্রম চলমান: নৌ প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, মঙ্গলবার   ০৩ আগস্ট ২০২১,   শ্রাবণ ১৯ ১৪২৮,   ২৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

আরো ৩৫টি ড্রেজার সংগ্রহের কার্যক্রম চলমান: নৌ প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৫৯ ১২ জুন ২০২১   আপডেট: ১৮:০৮ ১২ জুন ২০২১

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী- ফাইল ফটো

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী- ফাইল ফটো

১০ বছরে ৩৪টি ড্রেজার সংগ্রহ করা হয়েছে এবং আরো ৩৫টি ড্রেজার সংগ্রহের কার্যক্রম চলমান রয়েছে বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

শনিবার নারায়ণগঞ্জের সোনাকান্দাস্থ বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ডকইয়ার্ড অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস লিমিটেডে ১০টি বোলার্ড পুলের টাগবোটের (কিল লেয়িং) নির্মাণকাজের উদ্বোধন শেষে তিনি এ কথা জানান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, নদীপথ রক্ষার বিষয়টি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭২ সালে অনুভব করেছিলেন। বঙ্গবন্ধু নৌপথ খননের লক্ষ্যে সাতটি ড্রেজার সংগ্রহ করেছিলেন। এরপর ২০০৮ সাল পর্যন্ত কোনো সরকার ড্রেজার সংগ্রহ করেনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গত ১০ বছরে ৩৪টি ড্রেজার সংগ্রহ করা হয়েছে। আরো ৩৫টি ড্রেজার সংগ্রহের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। সরকার ১০ হাজার কিলোমিটার নৌপথ খননের মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। নদী তীরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রম অব্যাহত আছে।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর দক্ষ নেতৃত্বে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মাসেতু করতে সক্ষম হয়েছি। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেতৃত্ব দিচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করতে পারছেন বলেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ও চিন্তাগুলো বাস্তবায়ন করতে পারছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃতে দেশ আজ উন্নয়ন ও অগ্রগতির পথে এগিয়ে যাচ্ছে।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, আমরা স্বপ্ন জয়ের পথে আছি। দেশের উন্নয়নের ক্ষেত্রে অনেক চ্যালেঞ্জ ছিল। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে সেগুলো মোকাবিলা করতে সক্ষম হয়েছি।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহকারী নৌপ্রধান (ম্যাটেরিয়াল) রিয়ার অ্যাডমিরাল এম শফিউল আজম, বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক, নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান ডকইয়ার্ড অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমডোর এস এম মনিরুজ্জামান, প্রকল্প পরিচালক বিআইডব্লিউটিএ’র প্রধান প্রকৌশলী ড্রেজিং) এম এ মতিন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ/এইচএন