ফাইভজি ডিজিটাল যুগের আধুনিক প্রযুক্তির ব্যাকবোন: মোস্তাফা জব্বার

ঢাকা, শনিবার   ৩১ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ১৬ ১৪২৮,   ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

ফাইভজি ডিজিটাল যুগের আধুনিক প্রযুক্তির ব্যাকবোন: মোস্তাফা জব্বার

নিজস্ব প্রতিবেদক  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৩২ ২৯ এপ্রিল ২০২১   আপডেট: ১৮:১৪ ৩০ এপ্রিল ২০২১

‘হুয়াওয়ে ক্যারিয়ার কংগ্রেস-২০২১, বাংলাদেশ’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার - ডেইলি বাংলাদেশ

‘হুয়াওয়ে ক্যারিয়ার কংগ্রেস-২০২১, বাংলাদেশ’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার - ডেইলি বাংলাদেশ

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, ফাইভজি শুধু উচ্চগতির ডিজিটাল সংযোগই নয়, এটি ডিজিটাল যুগের আধুনিক প্রযুক্তির ব্যাকবোন (মেরুদণ্ড)। ২০২১ সালের মধ্যে ফাইভজি যুগে প্রবেশের জন্য বাংলাদেশ সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

তিনি বলেন, ফাইভজি ব্যবহার করে কৃষি ও শিল্পে বৈপ্লবিক পরিবর্তন সাধন করে একটি নতুন যুগ তৈরি করবে বাংলাদেশ। সেটি হবে কৃষি, শিল্প ও তথ্যযুগের পরের যুগ। 

বৃহস্পতিবার হুয়াওয়ে টেকনোলজি আয়োজিত ‘হুয়াওয়ে ক্যারিয়ার কংগ্রেস-২০২১, বাংলাদেশ’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী ২০১৮ সালে দেশে ফাইভজি পরীক্ষা সম্পন্ন করতে হুয়াওয়ের সহযোগিতার প্রশংসা করে বলেন, এটি ছিলো আমাদের জন্য খুব বড় একটা অভিজ্ঞতা। এরই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের পরামর্শে আমরা ২০২১ সালের মধ্যে ফাইভজি চালুর লক্ষ্য নির্ধারণ করে যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি।

ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচি পৃথিবীর কাছে অনুকরণীয় একটি কর্মসূচি উল্লেখ করে তিনি বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচির ধারাবাহিকতায় গত ১২ বছরে বাংলাদেশ ডিজিটাল সংযোগ প্রতিষ্ঠায় যুগান্তকারী পরিবর্তন ঘটিয়েছে। করোনার সময় ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচির প্রয়োজনীয়তা দেশের জনগণ উপলব্ধি করেছে। এ কর্মসূচির কারণে বৈশ্বিক মহামারিতেও মানুষের জীবনযাত্রা থেমে থাকেনি। স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় মানুষের ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথের দ্বিগুণ চাহিদা বেড়েছে।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, দেশের প্রতিটি ইউনিয়নে অপটিক্যাল ফাইবার নেটওয়ার্ক সংযোগ স্থাপন প্রায় চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। শতকরা ৯৮ শতাংশ মোবাইল নেটওয়ার্ক ফোরজি নেটওয়ার্কের আওতায় আনা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান শ্যামসুন্দর সিকদার, হুয়াওয়ে টেকনোলজি (বাংলাদেশ) লিমিটেডের সিইও ঝুয়াং ঝ্যাংজুন, ওয়াইন্ড স্পেস কনসালটিংয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক স্কট ডব্লিউ মাইন হ্যান ও আইটিইউয়ের এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের আঞ্চলিক কার্যালয়ের কর্মকর্তা আমির রিয়াজ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ/টিআরএইচ