স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ঢাকায় উড়বে ৮০০ ড্রোন

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৩ এপ্রিল ২০২১,   চৈত্র ৩০ ১৪২৭,   ২৯ শা'বান ১৪৪২

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ঢাকায় উড়বে ৮০০ ড্রোন

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৪৩ ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৯:০০ ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বর্ণাঢ্য আয়োজন ও যথাযোগ্য মর্যাদায় স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করবে সরকার। এ লক্ষ্যে ড্রোন, এরিয়াল ও ফায়ারওয়ার্কস (আতশবাজি) শো করা হবে। এ দিন ঢাকার আকাশে ৭০০ থেকে ৮০০ ড্রোন উড়ানো হবে।

জানা গেছে, গত ১০ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত অনুমোদন অনুযায়ী স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী  বর্ণাঢ্য আয়োজনের মাধ্যমে উদযাপনের  সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে সরকার। এ লক্ষ্যে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি একটি প্রস্তাবের নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে। এ ধরনের ইভেন্ট বাংলাদেশে প্রথমবার হবে, যেখানে ব্যবহৃত হবে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক জানান, সুবর্ণজয়ন্তীতে ড্রোন, এরিয়াল ও ফায়ারওয়ার্কস শো-এর আয়োজন করবে সরকার। এ আয়োজনগুলো হবে মানসম্মত। অত্যন্ত সুন্দরভাবে আয়োজনগুলো সম্পন্ন করতে কাজ করা হচ্ছে।

তিনি আরো জানান, আগামী ২৬ মার্চ ৭০০ থেকে ৮০০ ড্রোন আকাশের ৪০০ থেকে ৪৫০ ফুট উপরে উঠে ৩০ মিনিটের বিভিন্ন শো উপস্থাপন করবে। লেজার শো-এর মধ্যে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন শো এরিয়াল লেজার প্রজেকশন প্রদর্শন হবে। দু’টি হেলিকপ্টারের মাধ্যমে ১ হাজার ফুট উঁচু থেকে  ৩ হাজার বর্গমিটার বিস্তৃত লেজার প্রজেকশন শো প্রদর্শন করা হবে। সেখানে প্রদর্শন করা হবে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণসহ বাংলাদেশের অভ্যুদয় ও উন্নয়নের চিত্র। জাতীয় সংসদ প্লাজা বা হাতিরঝিল প্রাঙ্গণে এ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হতে পারে। এতে অনুষ্ঠান উপভোগ করতে পারবেন ঢাকার লাখ লাখ মানুষ।

মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবনায় বলা হয়েছে, আগামী ২৬ মার্চ উদযাপন করা হবে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী মহাসমারোহ। গিনেজ বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার লক্ষ্যে আগামী ২৬ মার্চ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী কর্মসূচির উদ্বোধনী দিনে ড্রোন শো ও এরিয়াল প্রজেকশন শো’র আয়োজন করা প্রয়োজন। সময় স্বল্পতার কারণে এবং একক উৎস বিবেচনায় সরাসরি ক্রয় প্রক্রিয়ার বিষয়ে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি কর্তৃক অনুমোদনের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে।

জানা গেছে, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে তিনটি শো বাস্তবায়ন ও তত্ত্বাবধান করবে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ‘ইনসেপশন ৩৬০ লিমিটেড’।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ/টিআরএইচ/আরএইচ